সোনারপুর, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: টিউশন পড়ার জন্য বাড়ি থেকে বেরিয়েছিল দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রীটি। পথে দেখা হয় বন্ধু অর্ঘ্য দাসের সঙ্গে। অর্ঘ্যর সঙ্গে নাটকে অভিনয় করে মেয়েটি। অর্ঘ্য তাঁকে নিয়ে যায় আরেক বন্ধু উৎপল গায়েনের বাড়িতে। সেখানে হাজির ছিল আরও কয়েকজন যুবক। সকলেই ওই ছাত্রীর পূর্ব পরিচিত।তারপরই ঘটে যায় বিপদ।

মেয়েটি পুলিশকে জানিয়েছে, ওই ছেলেরা তাঁকে লিমকা খেতে দেয়। তারপর তাঁর আর কিছু মনে নেই। পরে সে দেখে সে বিছানার মধ্যে পড়ে রয়েছে। কিশোরীর বাড়ির লোক খবর পেয়ে তাঁকে উদ্ধার করে বাইপাসের ধারে একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করে।

প্রাথমিক চিকিৎসার পর কিশোরীর ওপর যৌন নির্যাতনের কথা মেনে নিয়েছেন চিকিৎসকরা। দোশীদের কঠিন শাস্তির দাবি জানিয়েছে কিশোরীর মা ও দিদি।

ঘটনার তদন্তে নেমে কিশোরীর চার বন্ধুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here