CITU

ওয়েবডেস্ক: আগামী ৮ এবং ৯ জানুয়ারি ধর্মঘটের ডাক দিয়েছে একাধিক শ্রমিক ও কর্মচারী সংগঠন। যেগুলির মধ্যে শুধু বামপন্থী নয়, ডানপন্থী কয়েকটি সংগঠনও রয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের জনবিরোধী বহুবিধ নীতির বিরুদ্ধে দু’দিনের ধর্মঘটকে সফল করতে রাজ্য অচল করে দেওয়ার একগুচ্ছ কর্মসূচির আভাস মিলল বাম ১৭টি বাম ও সহযোগী দলের শীর্ষ নেতৃত্বের বৈঠকে।

এ রাজ্যের সিটু নেতৃত্ব দাবি করেছেন, কেন্দ্রীয় সরকারের শ্রমিক-বিরোধী, জনবিরোধী, জাতীয় স্বার্থবিরোধী ও কর্পোরেট তোষণকারী নীতির বিরুদ্ধেই তাঁদের এই ধর্মঘট। স্বাভাবিক ভাবেই তাঁদের আশা, এই কর্মসূচিতে রাজনীতির ঊর্ধ্বে উঠে সমাজের বৃহত্তর অংশের সমর্থন তাঁরা পাবেন। অন্য দিকে শ্রমিক সংগঠনের পাশাপাশি সরাসরি ধর্মঘটের প্রচারে নেমেছেন বামনেতৃত্বও। ধর্মঘটকে সার্বিক সাফল্য দিতে নেওয়া হয়েছে একাধিক পরিকল্পনা।

জানা গিয়েছে, দলীয় ভাবেও সিপিএম-সহ অন্যান্য বাম দলগুলির তরফে শ্রমিক-কর্মচারী ধর্মঘটকে সফল করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। দলের নেতাকর্মীরাও সক্রিয় ভাবে অংশ নিতে পারেন এই দু’দিনের ধর্মঘটে। যে কারণে কর্মসূচির প্রচারে এলাকাভিত্তিক ভাবে দলীয় নেতা-কর্মীরাও অ্ংশ নিচ্ছেন। একই ভাবে ধর্মঘটের দিনেও রাজ্য অচল করতে যানবাহন ও রেল রোকোতেও সিপিএমের একটা বড়ো অংশ ময়দানে নামতে পারে। এমনটাও জানা গিয়েছে, ওই দিন রাস্তা এবং রেল স্টেশনেও দলীয় নেতা-কর্মীরা সক্রিয় ভাবে উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গিয়েছে।

উল্লেখ্য, গত সোমবার সিপিএমের রাজ্য দফতরে আলোচনায় বসে ১৭টি বাম ও সহযোগী দলের শীর্ষ নেতৃত্ব। জানা গিয়েছে, সেখানেও দু’দিনের এই ধর্মঘট নিয়ে বিশদ আলোচনা হয়।

[ আরও পড়ুন: মাস না-ঘুরতেই ২ রাজ্যে সমর্থন তুলে নেওয়ার হুমকি মায়াবতীর! ]

ফলে রাজনৈতিক ওয়াকিবহাল মহলের মতে, কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এই শ্রমিক-কর্মচারী কর্মসূচিকে হাতিয়ার করে চ্যালেঞ্জ হিসাবে নিতে চাইছেন বাম নেতৃত্ব। হাতে গোনা ক’মাস বাদেই দেশের সাধারণ নির্বাচন। কার্যত সেই নির্বাচনকেই পাখির চোখ করে কেন্দ্রের বিজেপি-বিরোধী প্রচারকে তুঙ্গে নিয়ে যাওয়াই মূল লক্ষ্য হয়ে উঠতে পারে বলে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন। কারণ, ধর্মঘটে যে ডজনখানেক দাবির কথা তুলে ধরা হচ্ছে, সেগুলি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই প্রতিবাদ জানিয়ে আসছে বিভিন্ন শ্রমিক ও কর্মচারী সংগঠন। সে ক্ষেত্রে লোকসভা ভোটের কথা না-উল্লেখ থাকলেও নির্বাচনের ক’মাস আগে দাঁড়িয়ে সেটাই মুখ্য হয়ে ওঠা স্বাভাবিক।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন