টেস্ট নামল ১৮ হাজারে, রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ ২০৯ দিনের মধ্যে সর্বনিম্ন

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রবিবার এমনিতেই কম টেস্ট হয়। কিন্তু ১৭ জানুয়ারি রবিবার রাজ্যে টেস্ট তুলনামূলক ভাবে আরও অনেকটাই কম হয়েছে। টেস্ট কম হওয়ার ফলে পাল্লা দিয়ে কমেছে রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণ। সোমবার রাজ্যের স্বাস্থ্য দফতর যে রিপোর্ট প্রকাশ করেছে তাতে দেখা যাচ্ছে যে গত ২০৯ দিনের মধ্যে সব থেকে কম দৈনিক সংক্রমণের ঘটনা ঘটল রাজ্যে।

এ দিকে দৈনিক সংক্রমণের হারও কিন্তু পাল্লা দিয়ে কমতে শুরু করেছে। অর্থাৎ সংক্রমণের হারের পাশাপাশি সংক্রমণের ধারও রাজ্যে ক্রমশ কমছে।

Shyamsundar

রাজ্যের কোভিড তথ্য

গত ২৪ ঘণ্টায় পশ্চিমবঙ্গে নতুন করে কোভিডে (Covid 19) আক্রান্ত হয়েছেন ৩৮৯ জন। এর ফলে রাজ্যে মোট কোভিডরোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫ লক্ষ ৬৫ হাজার ৬৬১ জন। গত ২৩ জুন, রাজ্যে ৩৭০ জন আক্রান্ত হয়েছিলেন, তার পর এই প্রথম বার এত কম দৈনিক সংক্রমণের ঘটনা ঘটল রাজ্যে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ৫৬৯ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট কোভিডজয়ীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৫ লক্ষ ৪৮ হাজার ৭০৯ জন। নতুন করে আরও ১০ জনের মৃত্যু হওয়ায় রাজ্যে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১০ হাজার ৬৩।

রাজ্যে বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ৬ হাজার ৮৯৩ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১৯০ জন সক্রিয় রোগী কমেছে রাজ্যে। রাজ্যে সুস্থতার হার বর্তমানে ৯৭ শতাংশ।

দৈনিক সংক্রমণের হারের তুল্যমূল্য বিচার

টেস্ট কমেছে তাই আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে। এটা যেমন সত্যি, তেমনই এটাও সত্যিই যে সংক্রমণের দাপট বোঝার জন্য যার ওপরে সব থেকে বেশি নির্ভর করতে হয়, সেই দৈনিক সংক্রমণের হার কিন্তু কমেই চলেছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে ১৮ হাজার ৮৬৫টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। ফলে এ দিন দৈনিক সংক্রমণের হার ছিল ২.০৬ শতাংশ। গত সোমবার রাজ্যে এই হারটাই ছিল ২.৬২ শতাংশ। এর থেকেই বোঝা যায় যে সংক্রমণের দাপট রাজ্যে কমছে।

এ দিকে রাজ্যে সামগ্রিক সংক্রমণের হারও আরও কিছুটা কমেছে। এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট ৭৬ লক্ষ ৬৬ হাজার ২৩৮টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। সংক্রমণের হার রয়েছে ৭.৩৮ শতাংশ।

হাসপাতাল শয্যা-তথ্য

সুস্থতা বাড়তে থাকায় হাসপাতালের শয্যা কিন্তু ধীরে ধীরে বাড়ছে রাজ্যে। বর্তমানে রাজ্যে সরকারি এবং বেসরকারি মিলিয়ে মোট ১০২টি হাসপাতালে কোভিড চিকিৎসা হচ্ছে। রাজ্য জুড়ে মোট ১২ হাজার ৪৪০টি শয্যা চিকিৎসার জন্য চিহ্নিত রয়েছে। এর মধ্যে মাত্র ৬.৯৯ শতাংশ শয্যা বর্তমানে ভরতি রয়েছে।

কলকাতায় সংক্রমণ একশোর কম

কলকাতায় সংক্রমণ নেমে এসেছে একশোরও নীচে। উত্তর ২৪ পরগণায় সংক্রমণ একশোর ওপরে থাকলেও তা আগের দিনের তুলনায় কমেছে। এই পরিসংখ্যান যে তৃপ্তিদায়ক তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

কলকাতায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৯০ জন এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ১২৮ জন নতুন করে কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন। কলকাতায় ১৫০ আর উত্তর ২৪ পরগণায় ১১৬ জন সুস্থ হয়েছেন। কলকাতায় ১ এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ৫ জন কোভিডরোগীর মৃত্যু হয়েছে।

কলকাতায় এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১ লক্ষ ২৬ হাজার ৮১২। উত্তর ২৪ পরগণায় মোট আক্রান্ত ১ লক্ষ ২০ হাজার ৫২০। কলকাতায় বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ১,৩৫১ জন এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ১,৮৩০।দুই জেলায় মৃত্যু হয়েছে যথাক্রমে ৩,০৪৫ এবং ২,৪৪১ জনের।

পড়শি জেলাগুলিতে সংক্রমণ কুড়ির কম

কলকাতার পড়শি তিন জেলায় সংক্রমণ অনেকটাই কমেছে। এই তিন জেলাতেই গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত হয়েছে কুড়ি জনের কম। দক্ষিণ ২৪ পরগণায় আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ জন এবং সুস্থ হয়েছেন ২৭ জন।

হুগলিতে ১৩ জন আক্রান্ত এবং ৩৬ জন সুস্থ হয়েছেন। হাওড়াতে নতুন করে আক্রান্ত করে আক্রান্ত ১১ এবং সুস্থ হয়েছেন ২৯ জন। হুগলিতে সক্রিয় রোগী ৩৩৮, হাওড়ায় ৩০১ এবং দক্ষিণ ২৪ পরগণায় ৩২৫।

১২ জেলায় নতুন সংক্রমণ এক অঙ্কে

সোমবার রাজ্যের ১২টি জেলায় নতুন সংক্রমণ এক অঙ্কের রেকর্ড করা হয়েছে। এই জেলাগুলি হল আলিপুরদুয়ার (১), কোচবিহার (১), কালিম্পং (১), দক্ষিণ দিনাজপুর (১), মালদা (১), পুরুলিয়া (২), উত্তর দিনাজপুর (৩), ঝাড়গ্রাম (৫), বীরভূম (৬), পশ্চিম মেদিনীপুর (৬), দার্জিলিং (৭) এবং মুর্শিদাবাদ (৯)।

রাজ্যের বাকি জেলাগুলির মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সব থেকে বেশি সংক্রমণ ছিল বাঁকুড়ায় (২০)। বাকি সব জেলাতেই সংক্রমণ ছিল কুড়ির কম। বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম, পূর্ব বর্ধমান এবং উত্তর ২৪ পরগণা বাদে সব জেলাতেই কমেছে সক্রিয় রোগীর সংখ্যা।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

এ বার সারা দিনের পাসে বাস-ট্রাম-ফেরিতে কলকাতা ভ্রমণ

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন