কাজের চাপ সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নিলেন ৫৭ বছরের পোস্ট মাস্টার

0
678

কলকাতা:কাজের চাপ সহ্য করতে না পেরে জীবনটাই শেষ করে দিচ্ছেন, বেসরকারি সংস্থায় কর্মরত যুবক যুবতীদের মধ্যে ছবিটা একেবারে অচেনা নয়। পরীক্ষার ফল আশানরূপ হল না, পড়ুয়া আত্মহত্যার পথ বেছে নিল, এমন ঘটনাও আমাদের আজকাল নাড়া দেয় না। দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা, কর্পোরেটের কাজের ধরন নিয়ে দু’দিন আলোচনা, কাগজে লেখালেখি, তার পর যে কে সেই। সোমবারের সোদপুরের ঘটনাটা আবার কিছু প্রশ্নের সম্মুখীন করে দিল আমাদের। পেশাগত জীবনের চাপের মুখে হার মানলেন ৫৭ বছরের এক পোস্ট মাস্টার।

সোদপুরের বাসিন্দা অভিজিৎ রায় দিন দশেক আগে বদলি হয়েছিলেন বেলঘরিয়ার পোস্ট অফিসে। দীর্ঘ ৩৭ বছরের চাকরি জীবন। মৃত্যুর পর পাওয়া সুইসাইড নোট বলছে, নতুন অফিসে কাজের পদ্ধতির সঙ্গে মানিয়ে নিতে বেশ অসুবিধে হচ্ছিল অভিজিৎবাবুর। অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে (কোর ব্যাঙ্কিং সলিউশন) অভ্যস্ত হতে প্রবল সমস্যায় পড়ছিলেন। পোস্ট অফিসে গ্রাহকদের বিরক্তির মুখেও পড়তে হয়েছে একাধিক বার। না, মৃত্যুর জন্য কাউকেই দায়ী করেননি অভিজিৎ। তবে পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, অন্য অফিসে ক্লারিক্যাল পোস্টে বদলি চেয়ে আধিকারিকদের চিঠি লিখেছিলেন অভিজিৎবাবু। কোনো ফল হয়নি।

আর একটু গভীরে গেলে বোঝা যাবে বর্তমান প্রেক্ষাপটে দাঁড়িয়ে বেশ কিছু কারণে অভিজিৎ রায়ের আত্মহত্যা সমসাময়িক এ ধরনের ঘটনার চেয়ে কিছুটা হলেও আলাদা। প্রথমত, তিনি তথ্যপ্রযুক্তি কিংবা বেসরকারি সংস্থার কর্মী ছিলেন না, কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী ছিলেন। অতএব প্রবল কাজের চাপ সহ্য করতে না পেরে আত্মহত্যার পথ বেছে নেওয়ার ঘটনা এখন বেসরকারি সংস্থাতেই সীমিত নয়। দ্বিতীয়ত, অভিজিৎ রায় এক জন ৫৭ বছরের প্রৌঢ়। অর্থাৎ চাপের মুখে নিজেকে শেষ করে ফেলার প্রবণতা শুধু কৈশোর কিংবা যৌবনেই থেমে নেই।

সাম্প্রতিক এক সমীক্ষার ফল বলছে, নতুন প্রযুক্তিকে দ্রুত গ্রহণ করার ক্ষমতা থাকে ৩৫ থেকে ৪৫ বছরের মধ্যে। পঞ্চাশোর্ধ্ব চাকুরীজীবীদের মধ্যে এই ক্ষমতা খুবই কম। সেটা বোঝার পরেও কেন্দ্র কি আদৌ কোনো পদক্ষেপ করেছে? বিগত কয়েক বছরে নিয়োগ কমিয়ে আনা হয়েছে প্রায় প্রতিটি সরকারি দফতরে। কর্মীর সংখ্যা কমিয়ে প্রযুক্তিকে প্রাধান্য দিচ্ছে কেন্দ্র। তাও আবার এমন প্রযুক্তি, যা ব্যবহারের পক্ষে সুবিধাজনক নয়। অথচ কেন্দ্র দাবি করে, এই প্রযুক্তির হাত ধরেই নাকি এগোবে দেশ। আরও কত অভিজিৎ রায়ের প্রাণ নিয়ে ভারত হয়ে উঠবে ‘ডিজিটাল ইন্ডিয়া’, তা অবশ্য সময়ই বলবে।

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

loading...

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here