BJP
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: বীরভূমে বিজেপির রথযাত্রা কর্মসূচি ঘিরে বিপত্তি কিছুতেই যেন পিছু ছাড়ছে না বিজেপির। গত ৫ ডিসেম্বর পূর্বঘোষণা মতো রথযাত্রা না করতে পেরে তা পিছিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে আগামী ১৪ ডিসেম্বরে। এরই মাঝে শনিবার এক সঙ্গে পদত্যাগ করলেন দলের ৬০ জন নেতাকর্মী।

ঘটনায় প্রকাশ, দীর্ঘ দিন ধরেই বিজেপির কিষান মোর্চার সম্পাদক শান্তনু মণ্ডলের অপসারণকে কেন্দ্র করে শুরু হয়েছে দলের অন্দরে তীব্র চাপান-উতোর। একাংশের দাবি, তাঁকে জোর করে ওই পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। নির্দিষ্ট কোনো কারণ না দেখিয়ে শান্তনুবাবুর অপসারণের প্রতিবাদে বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা বেশ কয়েকদিন ধরেই ফুঁসছিলেন। শনিবার ঘটে গেল তারই চুড়ান্ত রূপের বহির্প্রকাশ।

প্রতিবাদীরা শান্তনুবাবুর অপসারণের কারণ জানতে চাইলে জেলা নেতৃত্ব তাঁদের বলেন, রাজ্য নেতৃত্বের নির্দেশেই ওই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অন্য দিকে এ ব্যাপারে রাজ্য নেতৃত্বের সঙ্গে যোগাযোগ করলে কোনো সদুত্তর মেলেনি বলেই অভিযোগ বিক্ষুব্ধদের।

আরও পড়ুন: গঙ্গাজল, গোবরজল, ঘট-আমপাতা দিয়ে বিজেপির সভাস্থল শুদ্ধিকরণ তৃণমূলের!

দীর্ঘ দিন ধরে টালবাহানা চলার পর এ দিন বেলা ১১টা নাগাদ দফায় দফায় বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন প্রতিবাদীরা। প্রথমে তাঁরা সিউড়ির এসপি মোড়ে বিজেপির কার্যালয়ে বিক্ষোভ দেখান। সেখান থেকে  বিজেপির জেলা সদর দফতরেও চলে বিক্ষোভ প্রদর্শন। কিন্তু এত কিছুর পরেও জেলা সভাপতি বিক্ষুব্ধদের সঙ্গে দেখা করতে চাননি বলে অভিযোগ। বাধ্য হয়ে বিক্ষুব্ধ প্রায় ৬০ জন বিজেপি নেতা-কর্মী এ দিন নিজেদের পদ থেকে ইস্তফা দেন বলে জানা গিয়েছে।