Bankura
indrani sen
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: স্কুল বন্ধের জেরে পুলিশের দ্বারস্থ হল পড়ুয়ারা। ঘটনাটি বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরের একটি বেসরকারি স্কুলের। বছর ২০ আগে বিষ্ণুপুর শহরের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের মল্লেশ্বর এলাকায় পথ চলা শুরু করেছিল বেসরকারি এই স্কুলটি। দীর্ঘদিন ধরে ভাড়াবাড়িতে চলা বেসরকারি এই স্কুলকে বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য বাড়ি মালিক চাপ দিচ্ছেন। এমনকী পড়ুয়াদের সঙ্গে খারাপ আচরণ, স্কুল চত্ত্বরে নোংরা ফেলে পরিবেশ নষ্ট করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ।

আনন্দমার্গ প্রাইমারি স্কুল নামে পরিচিত ওই স্কুলে বর্তমানে নার্সারি থেকে চতুর্থ শ্রেণির পড়ুয়া সংখ্যা ৫২ জন ও শিক্ষক সংখ্যা ছয়। স্কুল কর্তৃপক্ষের করা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বাড়ি মালিকরা। তাঁদের দাবি, অনেক পুরনো বাড়ি, যে কোনো সময় ভেঙে পড়ে দুর্ঘটনা ঘটনা ঘটতে পারে। দীর্ঘ দিন ধরেই স্কুল কর্তৃপক্ষকে বাড়ি ছেড়ে দেওয়ার অনুরোধ করা হয়েছে বলেও তাঁরা দাবি করেছেন। অন্য দিকে, স্কুল কর্তৃপক্ষ সরাসরি বাড়ির মালিকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন।

স্কুলের অধ্যক্ষ আচার্য্য প্রাণাথিসানন্দ অবধূত বলেন, ১ জানুয়ারি বাড়ি মালিকের জামাই স্কুলের গেটে তালা ঝুলিয়ে দিয়েছিলেন। পরে পুলিশের নির্দেশে ৪ জানুয়ারি তালা খুললেও কয়েক দিন পর পড়ুয়াদের সঙ্গে বাড়ি মালিক খারাপ আচরণ শুরু করেন বলে তিনি অভিযোগ করেছেন। এই অবস্থায় ৫২ জন পড়ুয়ার ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তিত ওই স্কুল কর্তৃপক্ষ পড়ুয়াদের সঙ্গে নিয়ে বিষ্ণুপুর থানায় অভিযোগ জানিয়েছেন। এই অবস্থায় সুস্থ পরিবেশে যাতে স্কুল চালানো যায়, তা নিশ্চিত করতেই ছাত্র-ছাত্রীদের সঙ্গে নিয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন: গোরু নয়, ছাগল চোর সন্দেহে ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে গণপিটুনি এ বার!

এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে বাড়ির মালিক উত্তমকুমার ভট্টাচার্য বলেন, “বয়স হয়েছে, পায়ে সমস্যা রয়েছে। উপরে উঠতে কষ্ট হয়। ওরা বাড়ি ছেড়ে দিলে পরিবারকে নিয়ে নীচে থাকতে পারব”। বাড়ি ছাড়ার লিখিত নোটিশ তিনি স্কুল কর্তৃপক্ষকে দেবেন বলেও জানিয়েছেন। এ বিষয়ে পুলিশের পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য করতে অস্বীকার করা হয়েছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here