Dumdum Murder

ওয়েবডেস্ক: দমদম গোরাবাজারে ডেকরেটর্সের কর্মী গণেশ কুণ্ডুকে গুলি করে খুনের ঘটনায় উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য। দুষ্কৃতীদের ব্যবহৃত বাইক উদ্ধারের পর সেটিকে বাজেয়াপ্ত করে পুলিশ। দমদম থানার পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বাইকটি দুষ্কৃতীরা ব্যবহার করলেও সেটির রেজিস্ট্রেশন রয়েছে অন্যের নামে। কার নামে?

বুধবার তাদের বারাকপুর আদালতে পেশ করা হয় গোরাবাজার-কাণ্ডে গ্রেফতার করা মূল অভিযুক্ত বাচ্চু দাস ও তার দুই সঙ্গী সুশান্ত মির্ধা ও শুভজিত্ চক্রবর্তীকে। পাশাপাশি পুলিশ জানায়, গ্রেফতারের পর ধৃতদের দফায় দফায় জেরা করা হয়েছে। জেরার মুখেই তারা স্বীকার করেছে বেশ কিছু তথ্য।

জানা গিয়েছে, যে বাইকটি চড়ে তারা গণেশের উপর গুলি চালায় সেটির নম্বর প্লেট যাতে দেখা না যায়, তার আগাম ব্যবস্থা নিয়েছিল তারা। সিসিটিভি ফুটেজ বা প্রত্যক্ষদর্শীদের চোখে ধুলো দিতে ওই নম্বর প্লেটে কাদা মাখানো ছিল। তবে শুধু মাত্র এই উদ্দেশেই কাদা মাখানো ছিল কি না, সেটাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

[ আরও পড়ুন: টেলভিশনে ‘চ্যানেল বাছাইয়ের আগে বিশদে দেখে নিন কে কত নিচ্ছে? ]

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার ভরসন্ধেয় গণেশকে খুন করে দুষ্কৃতীরা। এর পর গোপন সূত্রে খবর পেয়ে গত সোমবার গভীর রাতে ঘটনার চার দিনের মাথায়  সুন্দরবনের ঝড়খালিতে হানা দিয়ে ঘটনায় মূল অভিযুক্ত বাচ্চু দাস ও তার দুই সঙ্গী শুভ চক্রবর্তী এবং শান্তনু মৃধাকে গ্রেফতার করে দমদম থানার তদন্তকারী দল। বরানগর,  বেলঘরিয়া এক্সপ্রেসওয়ে , কৃষ্ণনগর, ঝড় খালি, গোসাবা-সহ বিভিন্ন জায়গার সমাজবিরোধী কাজের সঙ্গে ধৃতরা যুক্ত ছিল বলে জানতে পেরেছে তদন্তকারী দল।

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন