দক্ষিণ কলকাতার নামী স্কুলের শৌচাগার থেকে উদ্ধার ছাত্রীর রক্তাক্ত দেহ

0
Suicide
প্রতীকী ছবি

কলকাতা: দক্ষিণ কলকাতার নামী একটি ইংরাজি মাধ্যম স্কুলের শৌচাগার থেকে উদ্ধার হল এক ছাত্রীর রক্তাক্ত দেহ। উদ্ধারের পর আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর তাঁর মৃত্যু হয়। এই মৃত্যুর নেপথ্যে প্রকৃত কারণ কী, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

স্কুল সূত্রে জানা গিয়েছে, দক্ষিণ কলকাতার রানিকুঠির জি ডি বিড়লা স্কুলে শুক্রবার বেলা ১.৩৫টা নাগাদ শৌচালয়ে যান ছাত্রী। কিন্তু দীর্ঘক্ষণ না ফেরায় খোঁজ করা হয়। বেলা ২.১০টা নাগাদ শৌচালয়ের জানলা দিয়ে দেখা যায় হাতের শিরা কাটা অবস্থায় রক্তাক্ত হয়ে পড়ে আছেন ছাত্রী। তাঁর মুখে প্লাস্টিক জাতীয় কিছু গোঁজা ছিল বলে জানা গিয়েছে। যে কারণে রহস্য দানা বাঁধে।

Loading videos...

তৎক্ষণাৎ, তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু কিছুক্ষণের মধ্যেই তাঁর মৃত্যু হয়। ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছান কলকাতা পুলিশের ডিসি এবং জয়েন্টি সিপি। আসেন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরাও।

পুলিশ প্রাথমিক অনুমান, হতাশা থেকেই আত্মহত্যা করতে পারেন ওই ছাত্রী। কারণ, ঘটনাস্থল থেকে একটি তিন পাতার সুইসাইড নোট উদ্ধার হয়েছে। সেখানে নিজের জীবন এবং পরিবার সম্পর্কে বেশ কিছু হতাশাজনক কথা উঠে এসেছে। তবে ওই সুইসাইড নোট ছাত্রীর হাতে লেখা কি না, সেটাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই ঘটনাস্থলে পৌঁছায় কলকাতা পুলিশের হোমিসাইড শাখা। একই সঙ্গে সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজ খতিয়ে দেখার কাজ চলছে। এত ক্ষণ ধরে ঘটনা ঘটে গেল, কিন্তু কেউ টের পেলেন না কেন, কী ভাবে নিজের মুখে প্লাস্টিক ঢেকে শ্বাসরোধ করে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন ওই ছাত্রী, সে সব প্রশ্নেরই উত্তর খোঁজ চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.