teenager's father
আত্মঘাতী কিশোরের বাবা।

নিজস্ব প্রতিনিধি, শিলিগুড়ি: ভিন রাজ্যের এক স্কুলপড়ুয়ার মৃত্যু ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল দার্জিলিং-এ।

জানা গিয়েছে, বিহারের পটনার বাসিন্দা দীপক কুমার তাঁর বারো বছরের ছেলে আদিত্য রাজকে এই মাসের ষোলো তারিখ ভর্তি করেন দার্জিলিং-এর একটি বেসরকারি স্কুলে। কিন্তু চার দিন যেতে না যেতেই তাঁর মোবাইলে স্কুল থেকে ফোন করে জানানো হয়, তাঁর ছেলে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে। খবর পেয়েই তিনি পটনা থেকে ছুটে আসেন দার্জিলিং-এ। সেখানে এসে তিনি জানতে পারেন তাঁর ছেলের মৃত্যু হয়েছে। এর পরেই তিনি দার্জিলিং-এ পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

দার্জিলিং পুলিশের পক্ষ থেকে শনিবার আদিত্যের দেহ শিলিগুড়ির উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ এবং হাসপাতালে পাঠানো হয়। রবিবার ছেলের মৃত্যুর কথা বলতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন দীপক কুমার। তাঁর বক্তব্য, তাঁর ছেলে আত্মহত্যা করতে পারে না। কিছু দিন আগেই তিনি তাঁর ছেলেকে এই স্কুলে ভর্তি করেছেন। সেখানে তার বিহারেরও কিছু বন্ধু ভর্তি হয়েছিল। বন্ধুদের পেয়ে যথেষ্ট খুশিই ছিল আদিত্য।

দীপকবাবু আরও জানান, যে উচ্চতা থেকে ছেলে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে বলা হচ্ছে, সেই উচ্চতা থেকে ফাঁস দিয়ে কেউ মারা যেতে পারে না। ঘটনার মধ্যে স্কুলের কেউ জড়িত থাকলেও থাকতে পারে। দীপকবাবু চান, পুরো ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করা হোক। ঘটনার বিষয়ে দার্জিলিং-এর পুলিশ সুপার অখিলেশ চর্তুবেদী জানান, কী কারণে ছাত্রটির মৃত্যু হয়েছে তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। মৃতদেহের ময়নাতদন্ত হলেই মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here