অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, জগদীপ ধনকর। প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

কলকাতা: বিচারব্যবস্থা নিয়ে সরব হয়েছেন তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শনিবার হলদিয়ার সভা থেকে দু’-এক জন বিচারপতির যোগসাজশের কথা উল্লেখ করেছিলেন তিনি। যা নিয়ে রবিবার মুখ খোলেন রাজ্যপাল। তাঁর অভিযোগ, বিচারব্যবস্থাকে আক্রমণ করে নিজের সীমা অতিক্রম করেছেন সাংসদ। কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই কড়া ভাষায় পাল্টা প্রতিক্রিয়া অভিষেকের!

বিচারব্যবস্থা নিয়ে জোর বিতর্ক!

এ দিন শিলিগুড়িতে নাম না করে ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ অভিষেককে নিশানা করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। বলেন, “রাজ্যে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠানগুলোর উপর আক্রমণ নেমে আসছে, এটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। বিচারব্যবস্থার উপর আক্রমণ নিন্দনীয়। এসএসি দুর্নীতিতে এক জন বিচারপতি সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন, জনসভায় দাঁড়িয়ে তাঁকে আক্রমণ করা নিন্দনীয়। সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি আগেই নির্দেশ দিয়েছেন, যখনই বিচারব্যবস্থার উপর আক্রমণ নেমে আসবে, তখন কড়া পদক্ষেপ নিতে হবে”।

রাজ্যপাল কারও নাম উল্লেখ না করলেও এ দিন বিকেই পাল্টা প্রতিক্রিয়া দিতে গিয়ে চাঁচাছোলা ভাষায় ধনকরকে নিশানা করেন অভিষেক। বলেন, “আমি সর্বদা ক্ষমতার সামনে দাঁড়িয়ে সত্য কথা বলতে বিশ্বাসী। গতকাল আমি বলেছিলাম যে কী ভাবে কিছু ব্যক্তিকে রক্ষা করার জন্য কলকাতা হাইকোর্টের এক শতাংশ কেন্দ্রের সঙ্গে যোগসাজশে কাজ করছেন। লোকে দেখছে। কে আসলে ‘লাল দাগটা টপকাচ্ছেন’ তারা জানে”।

কী বলেছিলেন অভিষেক?

দলের শ্রমিক সংগঠনের সভায় অভিষেক বলেন, “আমার বলতে বলতেও আজ লজ্জা লাগে, যে বিচারব্যবস্থার এক জন-দু’জন এমন রয়েছেন, যাঁরা সম্পূর্ণ যোগসাজশে কাজ করছেন। এক শতাংশ এমন আছেন, যাঁরা তল্পি বাহকের কাজ করছেন। কিছু হলেই সিবিআই দিয়ে দিচ্ছেন। আপনার যদি মনে হয়, এই সত্যি কথা বলার জন্য ব্যবস্থা নেবেন, ক্যামেরার সামনে দু’হাজার বার এই কথা বলব”।

এখানেই না থেমে অভিষেক আরও বলেন, “খুনের মামলার তদন্ত আটকে দিচ্ছে। শুনেছেন কোনও দিন! আদালত চাইলে নিরাপত্তা দিতে পারে। আদালতের অধিকার আছে। কিন্তু খুনের মামলার তদন্ত স্থগিত করে দিতে পারেন না আপনি”।

দ্রুত ব্যবস্থার নির্দেশ রাজ্যপালের

 এ দিন রাজ্যপাল আরও বলেন, “বিষয়টিকে আমি গুরুত্ব সহকারে দেখছি। ২০২১ সালের সেপ্টেম্বর মাসে রাজ্যের মুখ্যসচিবের কাছ থেকে আমি রিপোর্ট চেয়েছিলাম। এখনও পর্যন্ত প্রতিক্রিয়া মেলেনি। গতকাল যা হয়েছে, তা নিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হোক। জনসভা থেকে বিচারব্যবস্থাকে আক্রমণ করার অর্থ গণতন্ত্রের জলাঞ্জলি। এ ধরনের কাজের সঙ্গে গণতন্ত্রের কোনো সম্পর্ক নেই”।

আরও পড়তে পারেন:

কয়েক মিনিটেই তৈরি হবে ইউএএন, কোনো ঝামেলা ছাড়াই প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা তুলতে পারবেন গ্রাহক

সিঁড়ির রেলিং থেকে উদ্ধার ঝুলন্ত দেহ, অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মীর রহস্যমৃত্যু বেহালায়

নেপালে ২২ জন আরোহীকে নিয়ে নিখোঁজ বিমান, ঘণ্টাছয়েক পর মিলল ধ্বংসাবশেষ!

জনসভা থেকে বিচার ব্যবস্থাকে ‘আক্রমণ’, সাংসদের মন্তব্য নিয়ে মুখ্যসচিবকে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ রাজ্যপালের

সর্বোচ্চ তাপমাত্রা উঠেছিল আটত্রিশে, রাতের ঝড়বৃষ্টির পর কলকাতায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা নামল চব্বিশে, ফিরল স্বস্তি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন