অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে বৈঠকে পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, রাজনীতিতে যোগ দেওয়া নিয়ে জল্পনা

0
অনুব্রত মণ্ডল, পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়। প্রতীকী ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: শুক্রবার বীরভূমের তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের (Anubrata Mondal) সঙ্গে বৈঠক করলেন অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় (Parambrata Chatterjee)। আচমকা এই নেতা-অভিনেতা বৈঠক ঘিরে শুরু হয়েছে জলঘোলা!

এ দিন বোলপুরের সার্কিট হাউসে হঠাৎ অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে দেখা করেন পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়কে। প্রায় দু’ঘণ্টা ধরে চলে তাঁদের মধ্যে কথাবার্তা। এক সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজ সারেন দু’জনে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন লাভপুরের তৃণমূল বিধায়ক অভিজিৎ মণ্ডল, বীরভূমের জেলাশাসক বিধান রায় এবং পুলিশ সুপার নগেন্দ্র ত্রিপাঠি।

অনুব্রত-সহ তৃণমূল বিধায়ক এবং জেলা প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের সঙ্গে এই বৈঠকের রেশ ধরেই পরমব্রতর রাজনীতিতে যোগ দেওয়া নিয়ে জলঘোলা শুরু হয়ে যায়।

তবে এ ধরনের সম্ভাবনার কথা উড়িয়ে দিয়েছেন অভিনেতা নিজেই। তিনি জানিয়েছেন, বোলপুরে এক বন্ধুর বাড়িতে গিয়েছিলেন। কোনো এক সমস্যা নিয়ে অনুব্রতর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। আর সেই সূত্রেই তাঁর সার্কিট হাউসে যাওয়া।

Shyamsundar

এ দিনের ঘটনাকে নেহাতই সৌজন্য সাক্ষাৎ হিসেবে উল্লেখ করেছেন পরমব্রত। প্রায়শই বোলপুরে যান তিনি। এ বারও ঘুরতে এসেই একটা ব্যক্তিগত কাজের সূত্রে অনুব্রতর সঙ্গে সাক্ষাৎ। দু’জনের মধ্যে কি রাজনৈতিক কোনো আলোচনা হল?

অভিনেতা বলেছেন, অনুব্রতর সঙ্গে তাঁর কথা বলে ভালোই লেগেছে। দুপুরে খেয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন তৃণমূল নেতা। তাই খাওয়া। পরস্পরের সঙ্গে কুশল বিনিময় ছাড়া আর অন্য কিছুই হয়নি।

এ দিনের সাক্ষাতের পর অনুব্রত সম্পর্কে প্রশাংসাও করেছেন পরমব্রত। অনুব্রত দক্ষতা নিয়েও প্রশংসায় ভরিয়ে দিয়েছেন অভিনেতা। তবে রাজনীতিতে যোগ দেওয়া নিয়ে তিনি স্পষ্টতই বলেন, রাজনীতিতে যোগ দেওয়া অথবা না- দেওয়ার ব্যাপারে জল্পনা বাড়িয়ে কোনো লাভ নেই।

আরও পড়তে পারেন: বিধায়কপদ খারিজের শুনানি: দ্বিতীয় দিনেও অনুপস্থিত মুকুল রায়, এ বার হাইকোর্টে শুভেন্দু অধিকারী?

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন