adra station

শুভদীপ চৌধুরী, পুরুলিয়া: রেলশহর আদ্রার সৌন্দর্য্যায়নের নির্দেশ দিয়েছে কেন্দ্রীয় রেলবোর্ড। যাত্রীদের সুবিধার্থে স্টেশন চত্বরটির পুনরায় নতুন করে সাজিয়ে তোলা হবে। এই প্রকল্পের জন্য টাকা এসেছে প্রায় ১০০ কোটি।

রেলসূত্রে খবর, আদ্রা স্টেশনের সৌন্দর্য্যায়নের জন্য বৈধ-অবৈধ, ছোটো-বড়ো মিলিয়ে স্টেশনের সামনাসামনি প্রায় ৭০টি দোকান ভাঙা পড়বে। ইতিমধ্যে দোকানগুলিতে নোটিশও দিয়েছে রেল। এই নোটিশ পেয়ে স্তম্ভিত দোকান মালিকরা। এই দোকানগুলির ওপরে ভরসা করেই তাঁদের সংসার চলে বলে জানান দোকান মালিকরা। রেল যদি এ ভাবে দোকানগুলি উচ্ছেদ করে দেয়, তা হলে তাঁদের পথে নামতে হবে বলে জানান তাঁরা।

শুধু দোকানদাররা নয়, এর ফলে সমস্যায় পড়তে পারেন যাত্রীরাও। প্রতি দিন ট্রেন থেকে নেমে এই দোকানগুলিতে যাত্রীরা আসেন জিনিস কিনতে অথবা খাবার খাওয়ার তাগিদে। আদ্রার সৌন্দর্যায়ন হলে এক দিকে শহরকে অনেক সুন্দর দেখতে যেমন লাগবে ঠিক তেমনই দোকানদাররাও সমস্যায় পড়বে মনে করেন শহরের বাসিন্দারা।

আদ্রা স্টেশনকে নতুন ভাবে সাজাতে এ বার স্টেশনে লাগানো হবে হবে চলমান সিঁড়ি, লিফট। পায়ে চলা সিঁড়িতেও আমূল পরিবর্তন হতে চলেছে। এই ব্যাপারে ইতিমধ্যেই প্রাথমিক রিপোর্ট’ তৈরি করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। কী ভাবে কাজ হবে সেই ব্যাপারে দিল্লিতে গিয়ে রেল বোর্ডের সঙ্গে একপ্রস্ত আলোচনা সেরে এসেছেন এডিআরএম (আদ্রা) ধনেশ্বর মোহান্ত ও সিনিয়র ডিইএন (কো-অর্ডিনেশন) হরসিমরন সিংহ ।

তবে কাজ কবে থেকে শুরু হবে, সেই বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি । তাঁর কাছে দোকানগুলির সমস্যার বিষয়ে জানানোয় তিনি জানান, “অবৈধ দোকানদারদের পুর্নবাসন দেওয়ার দায়িত্ব রেলের নয় । বৈধ দোকানদারদের দোকান দেওয়ার সময়েই জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, প্রয়োজন হলে ওই জায়গা যে কোনও সময়ে রেল ফিরিয়ে নিতে পারে।”

এ দিকে তৃণমূলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, স্টেশন সংলগ্ন এলাকার ব্যবসায়ীদের পুনর্বাসন না দেওয়া হলে তারা বড়োসড়ো প্রতিবাদে নামবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here