Anubrata Mondal

ওয়েবডেস্ক: বীরভূমের খয়রাশোলে তৃণমূল ব্লক সভাপতি দীপক ঘোষের গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যুর পরই সরানো হল কাঁকড়তলা থানার ওসি পার্থসারথী মুখোপাধ্যায়কে। উল্লেখ্য, গত রবিবার দুপুরে দীপকের উপর অতর্কিতে আক্রমণ চালায় দুষ্কৃতীরা।

স্থানীয় সূত্রে খবর, অতীতেও একাধিক বার দুষ্কৃতীদের হামলার মুখে পড়েছিলেন দীপকবাবু। তবে গত রবিবার দুপুরে কাজ থেকে ফেরার পথে দুষ্কৃতীরা তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালালে তিনি গুরুতর ভাবে জখম হন। জানা গিয়েছে, রবিবার মোটরবাইকে খয়রাশোল ফিরছিলেন দীপক ঘোষ। তখনই তাঁর মোটরবাইক আটকে দাঁড়ায় বেশ কয়েকজন দুষ্কৃতী। তাদের মাথায় হেলমেট ছিল। দীপকবাবু সামনে গেলেই তাঁকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় তারা। গুলি তাঁর চোয়াল ফুঁড়ে চলে যায়। তারপর তাঁর সারা শরীরে পরপর ভোজালির কোপ মারা হয়।

তাঁকে সেখান থেকে উদ্ধার করে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ভর্তি করা হয় স্থানীয় একটি হাসপাতালে। কিন্তু সেখানে তাঁর অবস্থার অবনতি হতে শুরু করলে স্থানান্তরিত করা হয় দুর্গাপুরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে। সেখানে তাঁর শরীর থেকে দু’‌টি গুলি বের করা হয়।  জিভ পুরোটাই কেটে বাদ দিতে হয়েছিল। প্রচুর রক্তপাত হয়েছিল। ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছিল তাঁকে। তাঁর শরীরে একাধিক অস্ত্রোপচারও করা হয়।  সে সময় চিকিৎসকরা দীপকবাবুর শরীরে আরও গুলি থাকার কথা জানান। এর পর সোমবার দুপুর নাগাদ তাঁর মৃত্যু হয়।

বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের ঘনিষ্ঠ হিসাবে পরিচিত ছিলেন দীপকবাবু। তাঁর মৃত্যুর পর স্বাভাবিক ভাবেই অনুব্রতবাবু বিজেপির বিরুদ্ধে অভিযোগের আঙুল তোলেন। তিনি দাবি করেন, বাইরে থেকে লোক নিয়ে এসে বিজেপি এ রকম নির্মম ভাবে খুন করেছে দীপককে। পাশাপাশি তিনি জানান, “পুলিশ উপযুক্ত পদক্ষেপ করবে। দলও বসে থাকবে না। এ ভাবে একটার পর একটা খুন হবে, তা তো মানুষ মেনে নেবে না। সুতরাং দল একেবারেই বসে থাকবে না। দল ব্যবস্থা নেবে”।

অন্য দিকে দীপক-খুনের নেপথ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীকোন্দলকেই দায়ী করেন স্থানীয় বিজেপি নেতা, বীরভূম জেলা বিজেপির সভাপতি রামকৃষ্ণ রায়। তিনি বলেন, ‘‘এর আগেও দীপক ঘোষের উপর হামলা হয়েছে। একই ভাবে খুন হয়েছে অশোক ঘোষ, অশোক মুখোপাধ্যায়রা। যাঁকেই ব্লক সভাপতির দায়িত্বে নিয়ে আসছে, তাঁকেই খুন হতে হচ্ছে। আসলে যাঁর উপর টাকা পয়সার ভাগাভাগির দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে, তাঁর উপরও হামলা হচ্ছে। এ বার আপনারাই বুঝে নিন।’’

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here