রাজীব-মামলায় রায় ঘোষণা আলিপুর আদালতের

rajeev Kumar
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: ধোপে টিকল না কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল রাজীব কুমারের আইনজীবীর সওয়াল। আলিপুর আদালতে খারিজ হয়ে গেল রাজীবের আগাম জামিনের আবেদন। শনিবার শুনানি শেষে রায় ঘোষণা করে আদালত।

শনিবার আদালতে প্রায় এক ঘণ্টা ধরে সওয়াল-জবাব চলে। দু’তরফই নিজেদের বক্তব্য পেশ করে। শুনানি শেষে কিছুক্ষণের মধ্যেই রায় ঘোষণা হতে পারে বলে জানা যায় আদালত সূত্রে।

রাজীবের আইনজীবী দাবি করেন, “সারদা আর্থিক কেলেঙ্কারির সঙ্গে সরাসরি কোনো সম্পর্ক নেই রাজীবের। এই মামলায় তিনি সাক্ষী দিয়েছেন। ২০১৯ সালে সারদাকর্তা সুদীপ্ত সেনে তিনটি মোবাইল বাজেয়াপ্ত করা হয়। এত দিন কী করছিল সিবিআই। সারদাকাণ্ডের তদন্ত করার আদৌ ইচ্ছে রয়েছে সিবিআইয়ের”?

তবে সিবিআইয়ের আইনজীবীর অভিযোগ, একাধিক বেনিয়মে জড়িত রাজীব। তাঁকে একাধিক বার তলব করেও সিবিআই দফতরে তিনি হাজিরা দেননি। স্পষ্টতই দাবি করা হয়, “রাজীব কুমার পলাতক। আইনের রক্ষকই আইনভঙ্গকারী। দেশের সংবিধানের অমর্যাদা করছেন তিনি। হাইকোর্টের রক্ষা কবচ সরার পর থেকেই তিনি পালিয়ে গিয়েছেন”।

কলকাতা হাইকোর্টে রাজীবের আইনি রক্ষাকবচ প্রত্যাহার করার পরই তাঁকে জেরার জন্য তলব করে সিবিআই। কিন্তু একাধিক নোটিশ পাওয়ার পরেও তিনি সিবিআই-মুখো হননি। উল্টে আগাম জামিনের জন্য দ্বারস্থ হন আদালতের। এর আগে বারাসতের জেলা জজের আদালত রাজীব কুমারের আবেদন ফিরিয়ে দেয়।

এ দিন ফের আলিপুর আদালতের ভারপ্রাপ্ত বিচারক সুজয় সেনগুপ্তের এজলাসে শুনানি শেষ রাজীবের জামিনের আবেদন খারিজ হওয়ায় সিবিআইয়ের পরবর্তী পদক্ষেপ বাস্তবায়নের পথ আরও সুগম হল।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহ থেকেই রাজীব কুমারকে হন্যে হয়ে খুঁজছে সিবিআই। কলকাতা থেকে উত্তরপ্রদেশ, সর্বত্রই পৌঁছেছেন তদন্তকারীরা। কিন্তু এখনও তাঁর নাগাল পাওয়া যায়নি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.