ব্ল্যাক প্যান্থারের দেখা মিলল এ রাজ্যের জঙ্গলে

0

আলিপুরদুয়ার: বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পে দেখা মিলল ‘ব্ল্যাক প্যন্থার’-এর। ফরেস্ট গাইডের ক্যামেরায় ধরা দিল জোড়া ‘মেলানেস্টিক লেপার্ড’ বা ব্ল্যাক প্যান্থার।

এই বন্যপ্রাণীরা চিতাবাঘই। তবে জিন ঘটিত কারণে ওই চিতাবাঘদের গায়ে হলদে ছোপ ফুটে ওঠে না। নিজেদের ওই ভয়াল চেহারার জন্য অন্যরকম খ্যাতি রয়েছে এই ব্ল্যাক প্যান্থারের। তা ছাড়া, দিনের বেলায় তাদের দেখা পাওয়া কার্যত বিরলতম ঘটনা।

গত মঙ্গলবার একদল পর্যটককে নিয়ে বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের জয়ন্তী থেকে প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দূরের মহাকাল পাহাড়ে গিয়েছিলেন ফরেস্ট গাইড লেখু মাহাতো। তখনই পাহাড়ের ঢাল বেয়ে এই ব্ল্যাক-প্যান্থারকে নেমে আসতে দেখেন নিন।

এই চিতাবাঘের ছবি তুলতে ভোলেননি লেখুবাবু। বন দফতরের দাবি, বক্সার জনমানবহীন জায়গায় যে ব্ল্যাক প্যান্থারের বসতি রয়েছে সেটা পরিষ্কার হল। এর আগে বেশ কয়েকবার বন দফতরের পাতা ক্যামেরার ট্র্যাপে ব্ল্যাকপ্যান্থারের অস্পষ্ট ছবি ধরা পড়লেও একেবারে দিনের আলোয় ওই বিরল প্রজাতির বন্যপ্রাণীদের দেখা মেলার কোনো তথ্য ছিল না তাদের নথিতে।

আরও পড়ুন গভীরে ডুবল ভোডাফোন, একই দিনে লম্বা দৌড় এয়ারটেলের

এদের সারা শরীর মিশমিশে কালো। জ্বলজ্বল করে ওঠে গাঢ় হলদে-সোনালী চোখ। দেখতে এতটাই ভয়ানক যে স্বাভাবিক চিতাবাঘদের চেয়েও এদের অনেক বেশি হিংস্র মনে হয়।

বন দফতরের নথি বলছে উত্তরবঙ্গের পাঁচটি সংরক্ষিত জঙ্গল মহানন্দা অভয়ারণ্য, নেওড়াভ্যালি,গরুমারা ও জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান এবং বক্সা ব্যাঘ্র প্রকল্পের জঙ্গলে ব্ল্যাকপ্যান্থারদের অস্তিত্ব রয়েছে। তবে এবারের ঘটনায় উচ্ছ্বসিত বনকর্তারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.