selim

কলকাতা: রায়গঞ্জ লোকসভার অন্তর্গত সাতটি বিধানসভার মধ্যে একটির দখল রয়েছে ফরওয়ার্ড ব্লকের হাতে। একটিতে আবার দ্বিতীয় স্থানে তারা। ফলে আগামী লোকসভা নির্বাচনে সিপিএম যদি কংগ্রেসের সঙ্গে জোটে যায়, তা হলে রায়গঞ্জে পৃথক প্রার্থী দিতে পারে বামফ্রন্ট শরিক ফরওয়ার্ড ব্লক। এ ব্যাপারে যে এখন থেকেই তোড়জোড় চলছে, তা জানিয়ে দিয়েছেন দলের বিধায়ক আলি ইমরান রামজ (ভিক্টর)।

গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে বামফ্রন্ট যে একটি মাত্র জেলা পরিষদে জিতেছে, সেটিও রায়গঞ্জ লোকসভার অধীন গোয়ালপোখর-২। স্বাভাবিক ভাবে শরিকদের কথা না ভেবে কেন্দ্রে বিজেপি আর রাজ্যে তৃণমূলের বিরোধিতার নামে সিপিএমের দ্বিচারিতাকে মোটেই গ্রাহ্য করবে না ফরওয়ার্ড ব্লক। ভিক্টর স্পষ্টতই বলেন, “সিপিএম নেতারা দিল্লিতে গিয়ে তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরে আওয়াজ তুলছেন বিজেপি হঠাও। আর রাজ্যে কংগ্রেসের সঙ্গে হাত ধরে বলছেন, তৃণমূল হঠাও। সিপিএমের এই ভণ্ডামি ধরা পড়া গিয়েছে। মানুষ আর বিশ্বাস করছে না এই দলকে”।

স্বাভাবিক ভাবে রায়গঞ্জের মতো শক্তঘাটিতে নিজেদের শক্তিশালী সংগঠনের কাঁধে ভর দিয়েই একা লড়ার সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে ফরওয়ার্ড ব্লক। ২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনে রায়গঞ্জে ফরওয়ার্ড ব্লকের সৌজন্যেই সিপিএম প্রার্থী মহম্মদ সেলিম কংগ্রেসের দীপা দাশমুন্সিকে হারাতে সক্ষম হয়েছিলেন বলে দাবি দলের। ভিক্টরের প্রশ্ন, সেলিম সে বার যে ১৬০০ ভোটে কংগ্রেস প্রার্থীর বিরু্দ্ধে জয়লাভ করেছিলেন তা কি কংগ্রেস নেতা অধীর চৌধুরীর সাহায্যে?

সব মিলিয়ে সিপিএমের উপর মহলে যখন কংগ্রেসের সঙ্গে জোট নিয়ে বিশদ আলোচনা চলছে, তখন শরিক দলের ভিন্নমত নতুন করে বিপাকে ফেলল সীতারাম ইয়েচুরিকে। কারণ, সিপিএম যদি কংগ্রেসের হাত ধরতে পারে, সে ক্ষেত্রে রায়গঞ্জে গত লোকসভায় চতুর্থ স্থানে থাকা তৃণমূলের হাত ধরলে ফরওয়ার্ড ব্লকের জয় প্রায় নিশ্চিত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here