কলকাতা : অভিমান হলে রাগ করবেন, গালাগালি দেবেন কিন্তু অভিমান করে দূরে সরিয়ে দেবেন না, অভিমান করে সংঘাতে যাবেন না। শিক্ষকদের এই বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার সঙ্গে প্রতিশ্রুতি দিলেন, আগামী ছ’ মাসের মধ্যে শিক্ষকদের সব শূন্য পদ পূরণ করা হবে।

শনিবার নেতাজি ইন্ডোরে স্টেট লেভেল টিচার্স কনভেনশনে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “লাল, নীল, না সবুজ এই দৃষ্টিভঙ্গী দিয়ে আমি দেখি না। আপনারা এই মাটির মানুষ, আপনারাই গড়তে পারেন, আপনারাই উৎসর্গ করতে পারেন, আমি এই দৃষ্টিভঙ্গী দিয়ে দেখি।” ঝগড়াঝাঁটি না করে বছরে অন্তত এক বার মিলিত হওয়ার ডাক দিলেন মমতা।
বাংলায় মেধার যে কোনো অভাব নেই মুখ্যমন্ত্রী তাঁর বক্তৃতায় সেটাই বোঝানোর চেষ্টা করেন। তিনি বলেন, বিদেশ থেকে শিক্ষক এনে বাংলার মেধা দেখানো হবে। রাজ্যে ভালো শিক্ষক আছেন, তাঁরা বাইরের থেকে অনেক ভালো পড়াতে পারেন। এখানেই শিকাগো, হার্ভার্ড গড়ে তোলা হবে।
মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আমাদের অনেক কিছু থাকা সত্ত্বেও অনেকে তা জানতে পারেন না। প্রচারে যেতে হবে। এটা প্রচারের যুগ। তবে মিথ্যা প্রচার না করে সত্য প্রচার করতে হবে।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, শিক্ষকদের অনেক সমস্যা আছে, কিন্তু সরকারের হাত বাঁধা। ২০১১ সালে সরকারে আসার পর থেকেই ঋণ শোধ করতে করতেই অনেক টাকা চলে যাচ্ছে। আগামী বছর ৭০ হাজার কোটি টাকা দিতে হবে। তার মধ্যে নোট বাতিলের ফলে আয় বন্ধ হয়েছে। কৃষকরাও টাকা পাচ্ছেন না। এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে গত পাঁচ বছরে ১৬টা নতুন বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করা হয়েছে বলে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দেন।
শনিবারের কনভেনশনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেন কল্পতরু। শিক্ষকদের জন্য একাধিক সুযোগসুবিধা ঘোষণা করেন —
১. শিক্ষকদের অবসরগ্রহণের সময়সীমা বাড়িয়ে ৬২ বছর করা।
২. শিক্ষকদের জন্য সরকারি হেলথ স্কিম চালু করা।
৩. প্যারাটিচার, ক্যাজুয়াল, পার্টটাইম টিচার এবং অশিক্ষক কর্মচারীদের জন্য স্বাস্থ্যসাথি হেলথ স্কিম চালু করা। 
৪. শিক্ষকদের চাকরির মেয়াদ ১০ বছর পূর্ণ হলে এক বার দেশে বেড়ানোর জন্য এলটিসি এবং ২০ বছর পূর্ণ হলে দু’ বার দেশে, বিদেশে ভ্রমণের জন্য এলটিসি।
৫. শিক্ষকরা তাঁদের কর্মজীবনে রিসার্চ বা ট্রেনিং নিতে গেলে ২৪ মাসের জন্য পূর্ণ বেতন পাবেন। আগে পেতেন না। আর উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে বছরে ১২ মাস ছুটি নিতে পারবেন পূর্ণ বেতন-সহ। 
মুখ্যমন্ত্রীর আরও একটি চমকপ্রদ ঘোষণা বিশ্বভারতীর আদলে বিশ্ববাংলা বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি করা। বোলপুরে বিশ্বভারতী থেকে ২ মিনিটের দূরত্বে তৈরি হবে ওই বিশ্ববিদ্যালয়। ইতিমধ্যেই বোলপুরে গীতবিতান সিটি তৈরি করার কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।  
এর পর  স্কুলের শিক্ষকদের নিয়ে একটি কনভেনশন করা হবে বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী।
এ দিকে বিভিন্ন শিক্ষক সংগঠনের পক্ষ থেকে শিক্ষকদের অবসরের বয়সসীমা বাড়ানো এবং হেলথ স্কিমের ঘোষণাকে সাধুবাদ জানানো হয়েছে। তবে তাঁরা চান আগামী দিনে এই রকম কনভেনশন না করে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে ইন্টারাক্টিভ সেশন হোক।

1 মন্তব্য

  1. প্রাইমারী ফাইনাল প্যানেল কবে বেরোবে এই বিষয়ে একটু খোজ নিন অনুগ্রহ করে আমরা সবাই খুবই চিন্তিত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here