কলকাতা: আগেই প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি পাঠিয়েছিলেন সিপিএম শাসিত কেরলের মুখ্যমন্ত্রী বিজয়ন। এবার লড়াইয়ের ময়দানে নামলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করে মুখ্যমন্ত্রী স্পষ্ট জানিয়েদিলেন, পশুবাজারে বাংসের জন্য গবাদি পশু বিক্রি চলবে রাজ্যে। কেন্দ্র সরকারের সিদ্ধান্তকে সাংবিধানিক পদ্ধতিতে চ্যালেঞ্জ করা হবে বলেও এদিন জানিয়ে দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বস্তুত, এদিনের সংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রকে তীব্র আক্রমণ করেন মমতা। তাঁর কথায়, গবাদি নিয়ে কেন্দ্রের এই নির্দেশিকা একতরফা সিদ্ধান্ত। এটা অসাংবিধানিক-অনৈতিক।এটা রাজ্যের ক্ষমতা খর্ব করা চেষ্টা, যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো ধ্বংসের চেষ্টা। মমতা বলেন, “কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত আমরা মানব না”। মমতা আরও বলেন, কে কী খাবে সেটা কেন্দ্র ঠিক করে দিচ্ছে, এটা ঠিক নয়। গরু নিয়ে যাওয়ার জন্য কৃষকদের খুন করা হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন মুখ্যমন্ত্রী। রমজানের সময় কেন্দ্রের এমন নির্দেশিকা জারির তীব্র প্রতিবাদ করেন মমতা।

তবে শুধু গবাদি পশু সংক্রান্ত ইস্যু নয়, এদিন লালবাতি নিয়েও কেন্দ্রকে তোপ দাগেন মমতা। তাঁর কথায়, লালবাতি কারা ব্যবহার করবে, সেটা রাজ্যের সিদ্ধান্ত হওয়া উচিৎ। কিন্তু এ ব্যাপারে রাজ্যের মত শোনেনি কেন্দ্র।

পাশাপাশি মমতা এদিন জানান অন্যান্য রাজ্যের মতো পশ্চিমবঙ্গেরও লোগো তৈরি হয়েছে। তা হেরিটেজ কমিটিতে পাঠানো হয়েছে। ছাড়পত্রের জন্য তা কেন্দ্রের কাছেও পাঠানো হয়েছে।

হাসপাতালের নিরাপত্তার জন্য ৩২০০ কর্মী নিয়োগ করা হবে বলেও এদিন জানান মুখ্যমন্ত্রী।

রাজ্য মন্ত্রিসভার পরবর্তী বৈঠক হবে দার্জিলিং-এ। ৮জুন।

ছবি: রাজীব বসু

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন