গুড় বাতাসা বিলি বিজেপির। ছবি: এবিপি আনন্দ-র সৌজন্যে

কলকাতা: গোরু পাচার মামলায় বৃহস্পতিবার আটক অনুব্রত মণ্ডল (Anubrata Mondal)। ঘটনার পর পরই ঢাক বাজিয়ে রাস্তায় নেমে গুড়-বাতাসা বিতরণ করল বিজেপি। বাঁকুড়ায় ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কে পেয়ারাবাগান-সহ বিভিন্ন এলাকায় দেখা গেল এই ঘটনা।

তদন্তে অসহযোগিতার অভিযোগে গরুপাচার মামলায় অনুব্রতকে আটক করেছে সিবিআই। এ দিন দুপুরে মেডিক্যাল পরীক্ষার জন্য আসানসোলের ইএসআই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে অনুব্রতকে। বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতিকে সিবিআই আটক করার পরই এই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে রাজ্য রাজনীতির আঙিনায়। এরই মধ্যে বিভিন্ন এলাকায় পথচলতি মানুষ ও স্থানীয় ব্যবসায়ীদের মধ্যে নকুলদানা ও গুড়-বাতাসা বিলি করা হয়। ঢাকও বাজান বিজেপি কর্মীরা।

রাজ্যের বিভিন্ন ভোটের সময় কখনও ‘চড়াম-চড়াম ঢাক বাজানোর’ কখনও বা ‘গুড়-বাতাসা’, ‘নকুলদানা’র দাওয়াই দিয়েছিলেন অনুব্রত। এ দিন সকালে বোলপুরের বাড়ি থেকে তাঁকে আটক করার পরই ঘুরেফিরে এল সেই গুড় বাতাসা এবং ঢাকের আওয়াজ।

বিজেপি নেতা বিকাশ ঘোষের মন্তব্য উদ্ধৃত করে এবিপি আনন্দ জানাচ্ছে, বাঁকুড়ার মানুষও চাইতেন যে অনুব্রত মণ্ডল গ্রেফতার হোন। আজ যখন গুড় বাতাসা দেওয়া হয় তখন সকলে হাসি মুখেই সেই বাতাসা নেন এলাকাবাসী। অনুব্রত বলেছিলেন, পঞ্চায়েত ভোটে চড়াম চড়াম ঢাক বাজাবেন। অথচ, সেই পঞ্চায়েত ভোটের আগেই গ্রেফতার হলেন। তাই এখন সেই ঢাক বাজানো হচ্ছে।

বিভিন্ন জেলায় নকুলদানা বিতরণও করছেন বিজেপি কর্মীরা। এ দিকে রাজ্য বিজেপির প্রাক্তন সভাপতি দিলীপ ঘোষ এ দিন একটি ফেসবুক পোস্টে এক দলীয় কর্মীর প্রশ্নের জবাবে লেখেন, গ্রামে ঢাক বাজিয়ে নকুলদানা বিলি করতে কোনো আপত্তি নেই।

আরও পড়তে পারেন: গোরু পাচার মামলায় অনুব্রত মণ্ডলকে গ্রেফতার করল সিবিআই

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন