খবর অনলাইন ডেস্ক: শুক্রবার তৃণমূলে ফিরলেন মুকুল রায় (Mukul Roy)। এই ‘অলৌকিক রাজনৈতিক ঘটনা’য় যখন উত্তাল রাজ্য-রাজনীতি, তখন নিজের ঢঙেই বিষয়টিকে সহজ-সরল ভাবে ব্যাখ্যা করলেন তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল (Anubrata Mondal)।

মুকুলের ঘরে ফেরাকে কার্যত গুরুত্ব না দিয়ে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, “টিভিতে মুকুল রায় তৃণমূল ভবনে গেল দেখলাম। নেত্রী মমতা ব্যানার্জি যে সিদ্ধান্ত নেবেন, সেটা দলের সিদ্ধান্ত। যদি মনে করে মুকুল রায়কে দরকার আছে, নেবে। কারণ মমতা ব্যানার্জি দলের সুপ্রিমো। তিনি যা বলবেন, তাই হবে”।

Loading videos...

সব চেয়ে বড়ো চাণক্য

তিনি বলেন, ‌”আমি তৃণমূল কংগ্রেসের এক জন কর্মী। আগে সংবাদ মাধ্যম বলত, মুকুল রায় না কি চাণক্য। একুশে তো মুকুল ছিল না, তা হলে মমতা ব্যানার্জির চেয়ে বড়ো চাণক্য আর কেউ নেই। এটা মাথায় রাখতে হবে। মমতা যা বলেন, তাই হয়। মমতা যা বলেন, সেটাই করেন”।

ভোটের আগে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন অনুব্রত। এ দিন বলেন, “আর আমি যেটা বলেছিলাম, ২২০ থেকে ২৩০, এখনও ছ’টাতে ভোট বাকি আছে। সেই সব কটাতেই জয়লাভ করব”।

গোয়ালে বাঁধা হচ্ছে

মুকুল রায়ের প্রত্যাবর্তন প্রসঙ্গে সাংবাদিকের প্রশ্নে অনুব্রতর জবাব, “গোয়ালে অনেক গোরু থাকে জানেন, রাত্রেবেলা দড়ি ছিঁড়ে বেরিয়ে যায়, সকালে আবার নিয়ে এসে গোঁজে বেঁধে দেওয়া হয়”।

মুকুলের প্রত্যাবর্তনের অনুষ্ঠান শেষে মমতা অবশ্য বলেন, “মুকুল আমাদের পুরনো পরিবারের সদস্য। ওকে ধমকে, চমকে, এজেন্সির ভয় দেখানো হয়েছিল। ওর উপর কম অত্যাচার হয়নি। মুকুল এখানে আসায় মানসিক ভাবে শান্তি পেয়েছে। কারণ, ওর শরীরটাও অনেক খারাপ হয়ে গিয়েছে।…বিস্তারিত পড়তে পারেন এখানে: মুকুল রায় ‘ঘরে’ ফিরলেন, আর কারা ফিরতে পারেন? জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.