duplicate-admit

কলকাতা : অসম থেকে প্রায় ৪০ লক্ষ নাগরিক ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেনের (এনআরসি) চূড়ান্ত তালিকা থেকে বাদ পড়েছেন। আর তার পরই তাঁদের মধ্যে যাঁরা ১৯৭৩ সালের আগে মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছেন এমন ৯০০০ জন সম্প্রতি নকল অ্যাডমিট কার্ডের জন্য আবেদন জানিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মধ্যশিক্ষা পর্ষদে। বুধবার বিষয়টি জানিয়েছেন পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়। তিনি বলেন, ইতিমধ্যে ৬০০০ অ্যাডমিট কার্ড পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

কল্যাণময়বাবু বলেন, যাঁরা আবেদন জানিয়েছেন তাঁরা ১৯৭৩ সালের পর ত্রিপুরা থেকে অসমে গিয়েছেন। ত্রিপুরায় সেই সময় কোনো শিক্ষা পর্ষদ বা বোর্ড ছিল না। তাই পশ্চিমবঙ্গের মধ্যশিক্ষা পর্ষদের অনুমোদন প্রাপ্ত ছিল বিদ্যালয়গুলি। তাই এখন অ্যাডমিট কার্ডের জন্য এখানেই আবেদন জানানো হচ্ছে।

ইন্দিরা গান্ধীর ৩৪তম মৃত্যু বার্ষিকী, কিছু অজানা কথা, অদেখা ছবি

আবেদনপত্রে আবেদনকারীরা লিখেছেন, বোর্ডের দেওয়া অ্যাডমিট কার্ড জন্মতারিখের প্রমাণপত্র হিসাবে কাজ করে। তাই এই অ্যাডমিট কার্ড অত্যাবশ্যক।

এই অ্যাডমিট কার্ডের আবেদনের সঙ্গে এনআরসি চূড়ান্ত তালিকা থেকে নাগরিকদের নাম বাদ পড়ার বিষয়টির কোনো রকম সংযোগ আছে কিনা? এ কথা জানতে চাইলে কোনো উত্তর দেননি কল্যাণময়বাবু। প্রশ্নটি এড়িয়ে গিয়ে তিনি বলেন, যাঁরা আবেদন করেছেন তাঁরা হয়তো কোনো ভাবে কার্ড হারিয়ে ফেলেছেন। এই আবেদন অনুযায়ী গত জুলাই থেকে অ্যাডমিট কার্ড পাঠানোর কাজ শুরু হয়েছে।

উল্লেখ্য ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেনের চূড়ান্ত খসড়া তালিকা প্রকাশ শেষ হয়েছে ৩০ জুলাই। এই তালিকায় প্রায় ৪০ লক্ষ নাগরিকের নাম নথিভুক্ত করা হয়নি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here