নিজের বাড়ির সামনেই দুষ্কৃতীদের গুলিতে লুটিয়ে পড়লেন আসানসোলের তৃণমূল কাউন্সিলার

0

ওয়েবডেস্ক: শনিবার রাত ১২টা – সাড়ে ১২টার মধ্যে কুলটি থানার বরাকরের মানবেড়িয়া এলাকায় গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্য়ু হল এক তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলারের। আসানসোল পুরসভার ৬৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ছিলেন তিনি।

স্থানীয় সূত্রে খবর, শনিবার রাতে খাওয়াদাওয়ার পর নিজের বাড়ির সামনেই পায়চারি করছিলেন তৃণমূল কাউন্সিলার মহম্মদ খালিদ খান। সে সময় আচমকা বাইকে চড়ে কয়েক জন দুষ্কৃতী তাঁর উপর চড়াও হয়। খুব কাছ থেকেই খালিদের উদ্দেশে গুলি ছোড়ে দুষ্কৃতীরা। একাধিক গুলি করা হয় তাঁর উদ্দেশে। প্রথমে পায়ে গুলি লাগতে মাটিতে পড়ে যান খালিদ। এর পরেও তাঁর মৃত্যু নিশ্চিত করতে দুষ্কৃতীরা তাঁর বুকে গুলি করে। খালিদ যন্ত্রণায় ছটফট করতে থাকলে দুষ্কৃতীরা সেখান থেকে চম্পট দেয়।

গুলিবিদ্ধ খালিদকে নিয়ে যাওয়া হয় আসানসোল জেলা হাসপাতালে। কিন্তু সেখানে নিয়ে যাওয়ার পর চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

নিজের বাড়ির সামনে এ ভাবে রাজ্যের শাসক দলের কাউন্সিলরের মৃত্যুতে গোটা এলাকায় উত্তেজনা ছড়ায়। খালিদের ভাই মহম্মদ আরমান দাবি করেছেন, দাদার উপর এই আক্রমণ প্রথম নয়। বছর তিনেক আগে এই ধরনের দুষ্কৃতী হামলা চলেছিল তাঁর উপর। সেই মামলা এখন আদালতের বিচারাধীন।

খালিদের পরিবার দাবি করেছেন, পুরনো কোনো শত্রুতার জেরেই হামলা চালানো হয়েছে খালিদের উপর। একই সঙ্গে এই ঘটনার নেপথ্যে অন্য কোনো কারণ রয়েছে কি না, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। তাদের ধারণা, ঝাড়খণ্ড লাগোয়া এলাকা হওয়ায় দুষ্কৃতীরা খুব সহজেই রাজ্য ছেড়ে পালিয়ে যেতে পারে। যে কারণে ঝাড়খণ্ড পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করা হতে পারে।

ঘটনার খবর পেয়েই শোকস্তবদ্ধ খালিদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করেন আসানসোল পুরসভার মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি। তিনি খালিদের পরিবারের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.