শোভন চট্টোপাধ্যায়কে ফোন বিধানসভার অধ্যক্ষের!

Sovan Chatterjee
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের পর এ বার রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী এবং কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে কথা বললেন বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে শিক্ষামন্ত্রী তাঁর ফ্ল্যাটে গিয়ে বৈঠক করলেও এ দিন জানা গিয়েছে, অধ্যক্ষ ফোনে কথা বলেন শোভনের সঙ্গে। অসমর্থিত সূত্রে খবর, দু’জনের কথোপকথনে উঠে আসে শোভনের রাজনীতিতে ফেরার প্রসঙ্গও।

এর আগেও পার্থবাবু এবং কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম একাধিক বার ফোন করেছেন শোভনকে। কিন্তু নির্দিষ্ট কারণেই দলের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রেখে চলছেন শোভন। সূত্রের খবর, বিমানবাবু তাঁকে বলেন, তিনি যেন শীঘ্রই দেখা করেন তাঁর সঙ্গে।

অধ্যক্ষের আহ্বানের প্রত্যুত্তরে শোভন না কি জানিয়েছেন, আগামী সপ্তাহেই তিনি কোনো একটা সময় তাঁর সঙ্গে সাক্ষাৎ করবেন। স্বাভাবিক ভাবেই অধ্যক্ষের ফোন এবং তাঁর আহ্বানে সাড়া দিয়ে দেখা করার আশ্বাসে ফের এক বার শোভনের তৃণমূলে ফেরার সম্ভাবনা নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়েছে।

তবে শোভনকে অধ্যক্ষের ফোন করার অন্যতম কারণ, বর্তমানে বিধায়ক শোভন বিধানসভার ফিজারিজ কমিটির চেয়ারম্যান। দীর্ঘ দিন তিনি কমিটির বৈঠকে যোগ না দেওয়ার কারণেই এ দিন তাঁকে ফোন করেন অধ্যক্ষ। তাঁর ডাকে সাড়া দিয়ে তিনি আগামী সপ্তাহে বৈঠকে যোগ দেওয়ার কথা দেন।

জানা যায়, গত ২৩ জুলাই মঙ্গলবার গভীর রাত পর্যন্ত তৃণমূলের মহাসচিব তথা রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় শোভনের সাদার্ন অ্যাভেনিউর ফ্ল্যাটে ওই বৈঠক করেন। সেখানে শোভনকে দলে ফেরার আহ্বান জানান পার্থ। কিন্তু তার পরেও হেনস্থার অভিযোগ তুলে মিলি আল আমিন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার কথা জানান বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। গত বুধবার শোভনকে পাশে বসিয়ে সাংবাদিক সম্মেলন করেন বৈশাখী। সেখানেই তিনি ইস্তফার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেন।

শুক্রবার শিক্ষামন্ত্রীর বাড়িতেই পদত্যাগপত্র জমা দিতে যান বৈশাখী। বেরিয়ে এসে জানান, শিক্ষামন্ত্রী ইস্তফা গ্রহণ করেননি। তদন্তের আশ্বাস দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী। তাতে সন্তোষও প্রকাশ করেন বৈশাখী।

গত কয়েক বছর ধরেই শোভনের ‘অসময়ের বন্ধু’ হিসেবে পরিচিত বৈশাখী। এর পরই এ দিন জানা যায়, শোভনকে দলে ফেরাতে ময়দানে নেমেছেন খোদ বিধানসভার অধ্যক্ষ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.