নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্ধমান: কানামাছি খেলার নাম করে স্বামীকে গলার নলি কেটে খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল স্ত্রী ও তার বান্ধবীর বিরুদ্ধে। সোমবার ঘটনাটি ঘটেছে কালনার নিউ মধুবন এলাকায়। স্বামী চিরঞ্জিত পালকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কালনা মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার প্রেমিকা দীপা পন্ডিত ও তার বান্ধবী নাসিনাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। সূত্রের খবর, নাসিনা আর দীপার মধ্যে সমকামী সম্পর্ক থাকার জন্যই চিরঞ্জিতকে মেনে নিতে পারেনি তারা। তার জেরেই এই হত্যার চেষ্টা।             

দীপার বাড়ি কালনার নিউ মধুবন এলাকায়। সোমবার রাতে চিরঞ্জিতকে ফোন করে ডাকে দীপা। তাঁকে বাড়ির পিছনে একটি ফাঁকা মাঠে নিয়ে গিয়ে চিরঞ্জিতের চোখ বেঁধে দেয়। তারপরই দীপার বান্ধবী নাসিনা কাটারি দিয়ে তাঁর গলার নলি কাটার চেষ্টা করে। চিরঞ্জিত চিৎকার করলে দীপা ও নাসিনা ভয়ে পালিয়ে যায়। গলার নলি কাটা অবস্থাতেই চিরঞ্জিত কালনা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

dipa

চিরঞ্জিত থানাতে জ্ঞান হারান। এর পর পুলিশই তাঁকে কালনা মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে। তার গলায় ১১টি সেলাই পড়েছে বলে জানা গেছে। চিরঞ্জিতের বাড়ি কালনার শাশপুর দিঘির কাছে।

চিরঞ্জিত বলেন, কী কারণে দীপা তাঁকে প্রাণে মেরে ফেলার চেষ্টা করে, তা তিনি বুঝতে পারছেন না। তবে তিনি জানান, বুধবারই দীপার সঙ্গে তাঁর কালনার সিদ্ধেশ্বরী কালি মন্দিরে বিয়ে হওয়ার কথা ছিল।

অন্য দিকে চিরঞ্জিতের দাদা যুগল পাল ও তাঁর বন্ধু রঞ্জিত দেবনাথ জানান, প্রায় এক মাস আগেই চিরঞ্জিত সিঁদুর পরিয়ে দীপাকে বিয়ে করেছিল। কিন্তু বিভিন্ন অসুবিধার কারণে দীপা তার বাপের বাড়িতে ছিল। প্রথম অবস্থায় আপত্তি থাকলেও শেষে দুই পরিবারের সম্মতিতেই বিয়ের দিন স্থির করা হয়। অথচ তার আগেই তাকে হত্যার চেষ্টা করা হল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here