Connect with us

রাজ্য

ত্রাণ ও পুনর্বাসনে পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে এক কোটি টাকার অনুদান অ্যাক্সিস ব্যাঙ্কের

রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহার হাতে চেক তুলে দিল অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক

কলকাতা: ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম বেসরকারি ব্যাঙ্ক অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক (Axis Bank) পশ্চিমবঙ্গের উম্পুন (Amphan) প্রভাবিত অঞ্চলে ত্রাণ ও পুনর্বাসনের জন্য রাজ্য সরকারকে এক কোটি টাকা আর্থিক সহায়তার কথা ঘোষণা করল। একই সঙ্গে গ্রাহকদের স্বাছন্দের কথা ভেবে ব্যাঙ্ক ৩০ জুন পর্যন্ত সেভিং ও কারেন্ট অ্যাকাউন্ট এবং প্রি-পেড কার্ড গ্রাহকদের অনলাইন আইএমপিএস এবং এটিএম-এ আর্থিক ও অন্যান্য লেনদেনের উপর থেকে চার্জ মুকুব করল।

ব্যাঙ্কের তরফে রিজিওনাল ব্রাঞ্চ ব্যাঙ্কিং হেড (ইস্ট) লাল সিং এবং ভাইস প্রেসিডেন্ট (গভর্নমেন্ট বিজনেস গ্রুপ) রবি কুমার রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা এবং অতিরিক্ত মুখ্য সচিব (অর্থ) হরি কৃষ্ণ দ্বিবেদীর হাত চেক তুলে দেন।

একটি অনুষ্ঠানে অ্যাক্সিস ব্যাঙ্কের এগজিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং হেড অব গভর্নমেন্ট বিজনেস গ্রুপ ডি কে দাস বলেন, “সংকটের এই মুহূর্তে অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক পশ্চিমবঙ্গের জনগণকে সহায়তা করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং তাঁদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে সর্বাত্মক সহায়তা করবে। ব্যাঙ্ক কর্মচারী ও পার্টনাররা নাগরিক পরিকাঠামো পুনরুদ্ধারের জন্য রাজ্য ও জেলা পর্যায়ের কর্তৃপক্ষের সঙ্গে নিরলস পরিশ্রম করে চলেছেন এবং সর্বসাধারণের সুবিধার জন্য রাজ্যে মাইক্রো-এটিএম, পিওএস মেশিন এবং মোবাইল ভ্যান পরিষেবা চালু করা হয়েছে। আমরা সুনিশ্চিত করেছি যাতে আমাদের ব্যাঙ্ক শাখা ও এটিএমগুলি এই অত্যন্ত গুরুত্ত্বপূর্ণ সময়ে গ্রাহকদের সহায়তা প্রদানে কার্যকরী থাকে।”

অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক জানায়, সামাজিক উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন সরকারি প্রকল্পে এই ব্যাঙ্ক সরকারি তহবিলকে সুষ্ঠু ভাবে পরিচালনা করে চলেছে। এই ব্যাঙ্ক রাজ্য নিযুক্ত বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে রাজ্য জুড়ে ধান সংগ্রহ পরিচালনা করে আসছে। অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক একমাত্র বেসরকারি ব্যাঙ্ক যা কৃষি বিভাগের অধীনে স্টেট ডিজাস্টার রেসপন্স ফান্ড পরিচালনা করেছে। এই ব্যাঙ্ক রাজ্য নগরোন্নয়ন দফতর এবং পঞ্চায়েতের অধীনে আইএসজিজিপি-রও ব্যাঙ্কার। রাজ্যের ফিনান্স পোর্টালগুলি যেমন – জিআরআইপিএস এবং এসবিএমএস-এর সঙ্গে সংযুক্ত এবং বিভিন্ন ইউএলবি কর এবং রাজ্য কর আদায়ের দায়িত্ব পালন করে অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক।

বর্তমানে অ্যাক্সিস ব্যাঙ্ক কলকাতা এবং পশ্চিমবঙ্গে যথাক্রমে তার ১৪৫ ও ৩০০টি শাখা এবং ৬৮০ ও ১৫১১টি এটিএমের মাধ্যমে সমস্ত রকমের ব্যাঙ্কিং এবং আর্থিক পরিষেবা দিচ্ছে।

রাজ্য

রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশনের নির্দেশের পরেও কেন উদাসীন বেসরকারি হাসপাতাল?

সরকারি নির্দেশকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে কী ভাবে এ ধরনের অমানবিক ঘটনাগুলি ঘটছে?

করোনা রোগীর চিকিৎসায় অমানবিক আচরণের অভিযোগ উঠছে একাধিক হাসপাতালের বিরুদ্ধে। প্রতীকী ছবি

কলকাতা: যথোপযুক্ত পরামর্শ না মেনে কোভিড-১৯ রোগীকে চিকিৎসা পরিষেবা না দেওয়ায় মহানগরের দু’টি হাসপাতালের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিয়েছে ওয়েস্ট বেঙ্গল ক্লিনিক্য়াল এস্টাবলিশমেন্ট রেগুলেটরি কমিশন (WBCERC) বা রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশন। তবে প্রশ্ন উঠছে, শীর্ষ আদালত থেকে শুরু করে কেন্দ্র-রাজ্য সরকার যে ভাবে মহামারি সংকটে চিকিৎসা পরিষেবায় স্বচ্ছতা বজায় রাখতে একাধিক পদক্ষেপ নিচ্ছে, সেখানে সেই সমস্ত নির্দেশকে তুড়ি মেরে উড়িয়ে কী ভাবে এ ধরনের অমানবিক ঘটনাগুলি ঘটছে?

সোমবার রাতে অ্যাম্বুলেন্সে মারা যাওয়া একজন কোভিড-১৯ (Covid-19) আক্রান্ত রোগীকে অ্যাম্বুলেন্সেই ফেলে রাখার অভিযোগ ওঠে বাইপাসের ধারের একটি বেসরকারি হাসপাতালের বিরুদ্ধে। তমলুকের ৬০ বছর বয়সি লায়লা বিবির পরিবারের অভিযোগ তাঁদের কাছ থেকে তিন লক্ষ টাকা অগ্রিম চাওয়া হয়।

পরিবার জানায়, ওই বৃদ্ধাকে পার্ক সার্কাসের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল। সেখানে তাঁর কোভিড-১৯ পজিটিভ রিপোর্ট আসে। ওই হাসপাতাল বৃদ্ধাকে অন্যত্র নিয়ে যাওয়ার কথা জানালে তাঁকে বাইপাসের ধারের ওই হাসপাতালে নিয়ে যান পরিবারের সদস্যরা। সেখানে ভরতি গিয়েই জটিলতার সৃষ্টি হয়।

অথচ, কমিশন আগেই পরামর্শ জারি করেছে, কোনো ধরনের রোগীরই ভরতির সময় আনুমানিক চিকিৎসা ব্যয়ের ২০ শতাংশ অথবা ৫০ হাজার টাকার বেশি অগ্রিম নিতে পারবে না বেসরকারি হাসপাতাল। করোনাভাইরাস (Coronavirus) আক্রান্ত রোগীর দ্রুত চিকিসা শুরু করতে হবে। রোগীর পরিবার ১২ ঘণ্টার মধ্যে অগ্রিম মেটাবেন। অভিযোগ পাওয়ার পরে ওই হাসপাতালটির বিরুদ্ধে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের করে কমিশন। ২০১৭ সালে গঠিত হওয়ার পর, কমিশন প্রথমবার এ ধরনের কোনো পদক্ষেপ নিল।

রোগীর পরিবারের অভিযোগ, তাঁরা ৮০ হাজার টাকা পর্যন্ত অগ্রিম জমা করতে প্রস্তুত ছিলেন। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তা প্রত্যাখ্যান করেন। অ্য়াম্বুলেন্সের ভিতরেই শায়িত রোগীর মৃত্যু হয় বিনা চিকিৎসায়।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ অবশ্য দাবি করেছেন, এই অভিযোগ সঠিক নয়। চিকিৎসকরা রোগীকে জরুরিকালীন পরিষেবা হিসেবে সিপিআর (Cardiopulmonary resuscitation) দেন, কিন্তু তাঁকে বাঁচানো যায়নি।

এই ঘটনা প্রসঙ্গে রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশনের চেয়ারম্যান অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি অসীমকুমার বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ‘‘আমি সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদন থেকে ঘটনাটি জেনেছি। এটা সত্যি, মিথ্যে যেটাই হোক না কেন, একটি অত্যন্ত দুঃখজনক এবং অমানবিক ঘটনা। এ বিষয়ে আমরা স্বত:প্রণোদিত মামলা শুরু করেছি। দু’টি হাসপাতালকেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, এ বিষয়ে বক্তব্য জানাতে। যে হাসপাতালে রোগী ভরতি ছিলেন এবং যেখানে তাঁকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, দু’টি হাসপাতালেরই বক্তব্য জানতে চেয়েছি”।

একই সঙ্গে তিনি জানান, এই মামলার শুনানি আগামী ১৯ আগস্ট হতে পারে। এটা ছাড়াও হোয়াটসঅ্যাপে আরও দু’টি অভিযোগ পেয়েছে কমিশন।

অন্য একটি ঘটনা উত্তর ২৪ পরগনার শ্যামনগরের পরিচিত চিকিৎসক প্রদীপকুমার ভট্টাচার্যের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে। করোনা চিকিৎসায় বেসরকারি হাসপাতালের বিল নিয়ে শোরগোলের মধ্যেই এই চিকিৎসকের মৃত্যু নিয়ে সরব হয়েছেন অনেকেই।

প্রদীপবাবুকে বাইপাসের ধারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল। সেখানেই তাঁর মৃত্যু হয়। তাঁর পরিবারকে ১৮ লক্ষ ৩৪ হাজার টাকার বিপুল অঙ্কের বিল ধরানো হয়। কয়েকটি সংগঠনের তরফে ওই বিল কমানোর অনুরোধও করা হয়। কিন্তু তাতে কোনো কাজ হয়নি।

এই ঘটনাটিতেও হস্তক্ষেপ করেছে রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশন। এ প্রসঙ্গে চেয়ারম্যান জানিয়েছেন, হাসপাতালকে ওই বিল রিভিউ করার কথা বলেছি। সে ক্ষেত্রে পরিবার যদি বিলের অঙ্ক মিটিয়েও দেন, তা হলেও তা পুনর্বিবেচনা করে বিলের অঙ্ক কমিয়ে টাকা ফেরত দেওয়ার নিয়ম রয়েছে।

প্রসঙ্গত, রাজ্য মেডিকেল কাউন্সিলের সভাপতি তথা রাজ্যের মন্ত্রী, নির্মল মাজি ইতিমধ্যেই বলেছেন, আকাশছোঁয়া বিল এবং বিল না মেটালে অমানবিক আচরণ, বেসরকারি হাসপাতালের এহেন আচরণকে বরদাস্ত করবে না রাজ্য সরকার। প্রয়োজনে গ্রেফতারির পরামর্শ দিয়েছেন তিনি। শুনে নিন-

Continue Reading

রাজ্য

রোগীর সংখ্যা পনেরোশোর কাছাকাছি, অথচ রাজ্যের দুই জেলায় এখনও কোভিডে কারও মৃত্যু হয়নি

মনে করা হচ্ছে, এই দুই জেলাতেই কোভিড-আক্রান্তের অধিকাংশই কমবয়সি। এ ছাড়া অভিবাসী শ্রমিকরাও রয়েছেন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু এড়িয়ে গিয়েছে এই দুই জেলা।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: এখনও মৃত্যুহীন থাকার রেকর্ড ধরে রাখতে পারছে বাঁকুড়া (Bankura) আর কোচবিহার (Cooch Behar)। রাজ্যের এই দুই জেলায় এখনও পর্যন্ত কোভিডে কারও মৃত্যু হয়নি। অথচ দুই জেলাতেই রোগীর সংখ্যা পনেরোশোর কাছাকাছি চলে গিয়েছে।

বুধবারের আগে পর্যন্ত রাজ্যের চার জেলায় কোভিডে (Covid 19) কারও মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি। কিন্তু বুধবার সেই তালিকা থেকে বাদ পড়ে পুরুলিয়া আর ঝাড়গ্রাম। পুরুলিয়ায় এক জন আর ঝাড়গ্রামে দু’ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে।

উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, ঝাড়গ্রামে মোট রোগী ১০৬ আর পুরুলিয়ায় ৪৫৭। অথচ বাঁকুড়া আর কোচবিহারে রোগীর সংখ্যা অনেক বেশি।

গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৫ জন আক্রান্ত হওয়ায় বাঁকুড়ায় মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১,২৩৭। অন্য দিকে কোচবিহারে এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১,৪৯৫। বাঁকুড়ায় সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৮৫০ জন আর কোচবিহারে ১,০৩৭ জন।

মনে করা হচ্ছে, এই দুই জেলাতেই কোভিড-আক্রান্তের অধিকাংশই কমবয়সি। এ ছাড়া অভিবাসী শ্রমিকরাও রয়েছেন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত মৃত্যু এড়িয়ে গিয়েছে এই দুই জেলা। যদিও কত দিন মৃত্যুহীন থাকার এই রেকর্ডটি এই দুই জেলা ধরে রাখতে পারে, সেটাই এখন দেখার।

অন্য দিকে গত মার্চে কালিম্পংয়ে এক প্রৌঢ়ার মৃত্যু হয়েছিল কোভিডে। তার পর থেকে সেই জেলায় আরও কারও মৃত্যু হয়নি। বর্তমানে এই জেলায় রোগীর সংখ্যা ২২৩।

কোভিডে মৃত্যুর সংখ্যায় এখনও সবার শীর্ষে কলকাতা (৯৯৯)। এর পর রয়েছে উত্তর ২৪ পরগণা (২৬১), দক্ষিণ ২৪ পরগণা (১১২), হুগলি (৭৭)। দার্জিলিং জেলায় মৃত্যু হয়েছে ৪১ জনের। পূর্ব মেদিনীপুরে ২৩ জন কোভিডে মারা গিয়েছেন। মুর্শিদাবাদে মৃত্যু হয়েছে ২২ জনের। নদিয়া আর ঝাড়গ্রামে ২০ জন করে ব্যক্তি মারা গিয়েছে কোভিডে।

১৭ জন করে রোগীর মৃত্যু হয়েছে জলপাইগুড়ি আর মালদায়। পূর্ব বর্ধমান আর দক্ষিণ দিনাজপুরে মারা গিয়েছেন ১৬ জন করে। পূর্ব বর্ধমানে ৮, বীরভূমে ৭ আর আলিপুরদুয়ারে পাঁচ জনের মৃত্যু হয়েছে কোভিডে।

Continue Reading

দেশ

‘প্রার্থনা চালিয়ে যেতে অনুরোধ করছি’, প্রণব মুখোপাধ্যায়ের পুত্রের টুইট

‘হিমোডিনামিক্যালি স্টেবল’ মানে হৃদযন্ত্র যে শক্তি দিয়ে রক্ত পাম্প করছে তা স্থিতিশীল আছে।

Pranab Mukherjee

খবরঅনলাইন ডেস্ক: “আমার বাবা ‘হিমোডিনামিক্যালি স্টেবল’ (haemodynamically stable) রয়েছেন। আপনারা তাঁর দ্রুত আরোগ্য কামনায় প্রার্থনা চালিয়ে যান” – সকলের উদ্বেগ-উৎকণ্ঠার মাঝে প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি (former President) প্রণব মুখোপাধ্যায়ের (Pranab Mukherjee) পুত্র অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় (Abhijit Mukherjee) বাবার স্বাস্থ্য সম্পর্কে এই বার্তা দিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় টুইট করেছেন।

চিকিৎসাবিদ্যার ভাষায় ‘হিমোডিনামিক্যালি স্টেবল’ মানে হৃদযন্ত্র যে শক্তি দিয়ে রক্ত পাম্প করছে তা স্থিতিশীল আছে। অর্থাৎ হৃদযন্ত্র এবং শিরা, ধমনীতে রক্ত চলাচল স্থিতিশীল রয়েছে।

আরও পড়ুন: ‘বাবার জন্য যেটা ভালো হবে, সেটাই যেন ঈশ্বর করেন,’ আবেগঘন টুইট প্রণব-কন্যা শর্মিষ্ঠার

দু’ দিন আগে দিল্লির সেনা হাসপাতালে ৮৪ বছরের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির মস্তিষ্কে জরুরি অস্ত্রোপচার হয়।  মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হাসপাতালের তরফে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছিল, তাঁর অবস্থার ‘অবনতি ঘটছে’।

বুধবার সকালে হাসপাতালের তরফে বলা হয়, তিনি ‘হিমোডিনামিক্যালি স্টেবল’ এবং ভেন্টিলেটরে রয়েছেন।

কিছু ক্ষণ পরেই প্রাক্তন রাষ্ট্রপতির কন্যা শর্মিষ্ঠা মুখোপাধ্যায় এক আবেগময় টুইট করে বলেন, “তাঁর জন্য যেটা সব চেয়ে ভালো হয়, তাই যেন করেন ঈশ্বর। মন স্থির রেখে জীবনের আনন্দ ও দুঃখ দু’টোই যেন মেনে নিতে পারি, সেই শক্তি দিতে বলছি ঈশ্বরকে।”

বুধবার সন্ধ্যায় পুত্র অভিজিৎ টুইট করে বলেন, “সকলের প্রার্থনায় বাবা এখন ‘হিমোডিনামিক্যালি স্টেবল’। আমি আপনাদের অনুরোধ করছি, বাবার দ্রুত আরোগ্য কামনায় আপনারা প্রার্থনা চালিয়ে যান এবং শুভেচ্ছা জানান।”

‘ঘরের ছেলের’ দ্রুত আরোগ্য কামনায় প্রণববাবুর পৈতৃক গ্রাম মিরিটিতে বুধবার নিয়ে দ্বিতীয় দিন বিশেষ প্রার্থনা চলছে। আর মিরিটি থেকে কয়েক কিলোমিটার এবং শান্তিনিকেতন থেকে ৩০ কিমি দূরে কির্নাহারে প্রণববাবুর আত্মীয়স্বজন তিন দিনব্যাপী মৃত্যুঞ্জয় যজ্ঞের আয়োজন করেছেন।

কির্নাহারের জপেশ্বর শিবমন্দিরে জন্মাষ্টমীর দিন থেকে যজ্ঞ শুরু হয়েছে। ছ’ জন পুরোহিত পালা করে যজ্ঞের পবিত্র আগুন জ্বালিয়ে রেখেছেন। উল্লেখ্য, মুখার্জি পরিবারই দীর্ঘকাল ধরে এই মন্দিরের দেখভাল করে।

Continue Reading
Advertisement

বিশেষ প্রতিবেদন

Advertisement
care
কেনাকাটা39 mins ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

দেশ55 mins ago

রামজন্মভূমি ট্রাস্টের প্রধানের কোভিড, ভূমিপুজোর দিন প্রধানমন্ত্রীর পাশেই ছিলেন

দেশ1 hour ago

সৎ করদাতাদের সুবিধার্থে ‘স্বচ্ছ করব্যবস্থা’ চালু করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

representational pic.
দেশ2 hours ago

এ বার পঞ্জাবে কংগ্রেসের দ্বন্দ্ব চরমে, মুখ্যমন্ত্রীকে ‘মানসিক ভারসাম্যহীন’ বললেন দলীয় সাংসদ

রাজ্য3 hours ago

রাজ্য স্বাস্থ্য কমিশনের নির্দেশের পরেও কেন উদাসীন বেসরকারি হাসপাতাল?

দেশ3 hours ago

৮ লক্ষের বেশি টেস্টে আক্রান্ত ৬৭ হাজার, দৈনিক সংখ্যায় রেকর্ড হলেও সংক্রমণের হার কমল ভারতে

দেশ3 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৬৬৯৯৯, সুস্থ ৫৬৩৮৩

SBI
শিল্প-বাণিজ্য4 hours ago

এসবিআই গ্রাহকরা কী ভাবে নিজেই ব্যালেন্স চেক করতে পারবেন?

কেনাকাটা

care care
কেনাকাটা39 mins ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পার্লার গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় অনেকেরই নেই। সেই ক্ষেত্রে বাড়িতে ঘরোয়া পদ্ধতি অনেকেই অবলম্বন করেন। বাড়িতে...

কেনাকাটা7 days ago

ঘর ও রান্নাঘরের সরঞ্জাম কিনতে চান? অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ৫০% পর্যন্ত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্ক : অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ঘর আর রান্না ঘরের একাধিক সামগ্রিতে প্রচুর ছাড়। এই সেলে পাওয়া যাচ্ছে ওয়াটার...

কেনাকাটা7 days ago

এই ১০টির মধ্যে আপনার প্রয়োজনীয় প্রোডাক্টটি প্রাইম ডে সেলে কিনতে পারেন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : চলছে অ্যামাজনের প্রাইমডে সেল। প্রচুর সামগ্রীর ওপর রয়েছে অনেক ছাড়। ৬ ও ৭  তারিখ চলবে এই সেল।...

কেনাকাটা1 week ago

শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল, জেনে নিন কোন জিনিসে কত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্: শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল। চলবে ২ দিন। চলতি মাসের ৬ ও ৭ তারিখ থাকছে এই অফার।...

things things
কেনাকাটা2 weeks ago

করোনা আতঙ্ক? ঘরে বাইরে এই ১০টি জিনিস আপনাকে সুবিধে দেবেই দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতিতে ঘরে এবং বাইরে নানাবিধ সাবধানতা অবলম্বন করতেই হচ্ছে। আগামী বেশ কয়েক মাস এই নিয়মই অব্যাহত...

কেনাকাটা2 weeks ago

মশার জ্বালায় জেরবার? এই ১৪টি যন্ত্র রুখে দিতে পারে মশাকে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: একে করোনা তায় আবার ডেঙ্গুর প্রকোপ শুরু হয়েছে। এই সময় প্রতি বারই মশার উৎপাত খুবই বাড়ে। এই বারেও...

rakhi rakhi
কেনাকাটা3 weeks ago

লকডাউন! রাখির দারুণ এই উপহারগুলি কিন্তু বাড়ি বসেই কিনতে পারেন

সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে মনের মতো উপহার কেনা একটা বড়ো ঝক্কি। কিন্তু সেই সমস্যা সমাধান করতে পারে অ্যামাজন। অ্যামাজনের...

কেনাকাটা3 weeks ago

অনলাইনে পড়াশুনা চলছে? ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ৪০ হাজার টাকার নীচে ৬টি ল্যাপটপ

ইনটেল প্রসেসর সহ কোন ল্যাপটপ আপনার অনলাইন পড়াশুনার কাজে লাগবে জেনে নিন।

কেনাকাটা3 weeks ago

করোনা-কালে ঘরে রাখতে পারেন ডিজিটাল অক্সিমিটার, এই ১০টির মধ্যে থেকে একটি বেছে নিতে পারেন

শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বুঝতে সাহায্য করে এই অক্সিমিটার।

কেনাকাটা4 weeks ago

লকডাউনে সামনেই রাখি, কোথা থেকে কিনবেন? অ্যামাজন দিচ্ছে দারুণ গিফট কম্বো অফার

খবরঅনলাইন ডেস্ক : সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে দোকানে গিয়ে রাখি, উপহার কেনা খুবই সমস্যার কথা। কিন্তু তা হলে উপায়...

নজরে

Click To Expand