পানাগড়: বুধবার ‘পুলিশ দিবস’ অনুষ্ঠানে এক গুচ্ছ ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

‘পুলিশ দিবস’ সম্পর্কে মমতা বলেন, “আজকের দিনে পুলিশকর্মী এবং কোভিডযোদ্ধাদের স্যালুট জানাই। পুলিশ সারা দিন রোদে-জলে-ঝড়ে কাজ করে। তাঁদের পরিবার ছেড়ে কাজ করে যেতে হয়। আমরা কন্য়াশ্রী, মাটি দিবস পালন করে আসছি। …পুলিশ কর্মীদের ব্যঙ্গ করছেন যাঁরা তাঁদের শুভবুদ্ধির উদয় হোক। কাজ করতে গেলে ভুল হয়। গোটা বাহিনীর বদনাম করা উচিত নয়”।

তৈরি হচ্ছে ডেটা সেন্টার ইন্ডাস্ট্রি

রাজ্যের শিল্পায়নের সমূহ অগ্রগতির কথা জানিয়ে তিনি বলেন, “ইথানলের মতো জৈব জ্বালানি তৈরি হবে বাংলায়। ভাঙা চাল দিয়ে তৈরি হবে জ্বালানি। যে চালগুলো ভেঙে যায়, সেগুলো দিয়েই এই শিল্প গড়ে উঠবে। রাজ্যে সব থেকে বেশি ধান উৎপাদন হবে। চাষিদের কাছ থেকে ভাঙা চাল কিনে নেবে রাজ্য। পাশাপাশি এই শিল্পকে কেন্দ্র করে গ্রামেগঞ্জে অনেক কারখানা গড়ে উঠবে। ৪৮ হাজারের বেশি মানুষ কাজ পাবেন। রাজ্যে দেড় হাজার কোটির বিনিয়োগ আসবে”।

রাজ্য সরকারের বিভিন্ন জনহিতকর প্রকল্পের কথা উল্লেখ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “বাইরে এক কেজি চালের দাম ৩০-৩৫ টাকা। আমরা রাজ্যের ১০ কোটি ৩০ লক্ষ মানুষকে বিনা পয়সায় রেশন দিচ্ছি। আগামী দিনে দুয়ারে রেশন পৌঁছে যাবে”।

তথ্যপ্রযুক্তি শিল্প সম্পর্ক তিনি বলেন, “দেশের মধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পের অন্যতম গন্তব্য এখন বাংলা। প্রায় দেড় হাজার সংস্থা কাজ করছে। রাজ্যে ডেটা সেন্টার ইন্ডাস্ট্রি তৈরি করা হবে। নতুন ডেটা ইন্ডাস্ট্রি নাীতিতে রাজ্যের নতুন লক্ষ্য তথ্য ব্যবস্থাপনা এবং সংগ্রহের হাব হিসেবে বাংলাকে গড়ে তোলা। যাতে পূর্ব ভারতের পাশাপাশি বাংলাদেশ, নেপাল এবং ভূটানেরও তথ্য সংক্রান্ত প্রয়োজনীয়তা বাংলা মেটাতে পারে। ডেটা সেন্টারগুলিকে সবরকম সাহায্য করবে রাজ্য সরকার। তথ্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে ২৪ হাজার চাকরি হবে”।

বাড়ছে ব্যাঙ্কের কাজের সময়

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “ব্যাঙ্কিং সেক্টরের কাজের সময় ৩টে পর্যন্ত থাকায় কিছু সমস্যা হচ্ছে। অনেকে তো ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খুলছে। লক্ষ্মী ভাণ্ডারের জন্য ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট দরকার। আমরা তো টাকা দেব ব্যাঙ্কের মাধ্যমে। তাই ব্যাঙ্কের কাজের সময়টা একটু বাড়ানো দরকার। কাল থেকে ব্যাঙ্কের কাজের সময়সীমা সম্পূর্ণ করে দেওয়া হবে। বিকেল ৫টা পর্যন্ত করে দিচ্ছি, যাতে মানুষ ব্যাঙ্কের অ্যাকাউন্ট খুলতে পারে। কারণ কোটি কোটি আবেদন জমা পড়ছে”।

তিনি আরও বলেন, “মাত্র তিন-সাড়ে তিন মাস আগে নির্বাচন হয়েছে। আমরা যা কথা দিয়েছিলাম, তা রেখেছি। এত তাড়াতাড়ি কেউ রাখে! অনেকে তো বিশ বছরেও রাখে না। আমরা মনে করি, যেটা বলব, সেটা করব। যেটা পারব না, বলব না। গতকালের মধ্যে দুয়ারে সরকার কর্মসূচিতে ২ কোটি রেজিস্ট্রেশন করেছি। স্বাস্থ্যসাথী কার্ড থেকে শুরু করে জমির রেজিস্ট্রেশন, জাতি শংসাপত্র হচ্ছে সেখানে। লক্ষ্মীর ভাণ্ডারে প্রায় দেড় কোটি মা-বোনেরা নাম লিখিয়েছেন”।

খবর অনলাইন-এ আজকের আরও কিছু উল্লেখযোগ্য খবর পড়ুন এখানে:

টিকাকেন্দ্রে হুড়োহুড়ি এড়াতে বাড়িতেই টিকার কুপন, সিদ্ধান্ত নবান্নের

তৃতীয় ঢেউয়ের কোনো ইঙ্গিত নেই, কেরলের বাইরে বাকি দেশে আক্রান্ত ১১,৭৬২

১৭ মাস পর স্কুল খুলল দিল্লিতে, খুশি পড়ুয়া-শিক্ষকরা

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন