তৈরির ২ বছরের মধ্যেই হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ল বাঁকুড়ার জলের ট্যাঙ্ক

বাঁকুড়া: মাত্র বছর দুয়েকের মধ্যেই তৈরি হয়েছিল বাঁকুড়ার সারেঙ্গার একটি জলের ট্যাঙ্ক। বুধবার বেলা ৩টে নাগাদ আচমকা হুড়মুড়িয়ে ভেঙে পড়ে সেটি। পুরো ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে স্থানীয় মানুষের মধ্যে।

স্থানীয় মানুষের বক্তব্য, এলাকার পানীয় জলের সমস্যা সমাধানের জন্য এই জলের ট্যাঙ্ক তৈরি করা হয়েছিল। কিন্তু বছর দুয়েকের মধ্যেই তা ভেঙে পড়ল।

স্থানীয় মানুষ অভিযোগ করেছেন, প্রশাসনের উদ্যোগে তৈরি জলের ট্যাঙ্কটি যথাযথ ভাবে গড়ে তোলা হয়নি। এ প্রসঙ্গে নির্মাণে ব্যবহৃত কাঁচামাল নিয়ে অভিযোগ তুলছেন তাঁরা।

স্থানীয় মানুষ আরও জানান, ঘটনার সময় ওই এলাকায় তেমন কেউ সম্ভবত ছিলেন না। ফলে হতাহতের কোনো খবর এখনও পর্যন্ত নেই।

জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র জানান, “পুরো ঘটনার খবর পেয়েছি। তদন্ত চলছে। দোষীরা শাস্তি পাবে। এটা একটা দুর্ঘটনা। এই দুর্ঘটনা কার ত্রুটিতে সংঘঠিত হয়েছে, তা খতিয়ে দেখে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে”।

একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, “ট্যাঙ্কটিতে সাত লক্ষ লিটার জল মজুত থাকত। সংলগ্ন গড়গড়িয়া ও বিক্রমপুর পঞ্চায়েতের ১২টি গ্রামে ওই জল সরবরাহ করা হতো। তবে স্থানীয় মানুষের প্রয়োজনীয় জল সরবরাহে কোনো অসুবিধা হবে না। সরাসরি পাম্প থেকে জল সরবরাহ করা হবে”।

[ আরও পড়ুন: বকেয়া বেতনের দাবিতে কলকাতা টেলিফোন ভবনে শ্রমিক বিক্ষোভ ]

বিরোধীদের পক্ষ থেকে অবশ্য দাবি করা হয়েছে, রাজ্য প্রশাসনের উদ্যোগে নির্মাণ এই জলের ট্যাঙ্কটির ভেঙে পড়ার ঘটনাতেই স্পষ্ট, কী ভাবে চলছে উন্নয়ন?

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.