Covid situation kolkata

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ১৯ হাজারের গণ্ডি পেরিয়ে রাজ্যে দৈনিক সংক্রমণে রেকর্ড হল শুক্রবার। কিন্তু এরই মধ্যে ভালো খবরও রয়েছে। টেস্টের সংখ্যা ব্যাপক ভাবে বাড়ায় সংক্রমণের হার ৩০ শতাংশের নীচে নেমেছে। অন্য দিকে, গত পাঁচ দিন ধরে সুস্থতার হারে একটু একটু করে বৃদ্ধি যেটা শুরু হয়েছিল, এ দিনও সেটা বহাল রয়েছে। আরও কিছুটা কমেছে মৃত্যুহার।

রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতি

এ দিন স্বাস্থ্য দফতরের প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় গোটা রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১৯ হাজার ২১৬ জন। এখনও পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৯ লক্ষ ৫৪ হাজার ২৮২।

Loading videos...

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১৭ হাজার ৭৮০ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট কোভিডজয়ীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৮ লক্ষ ১৮ হাজার ১০৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১১২ জনের মৃত্যু হয়েছে রাজ্যে। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত কোভিডে প্রাণ হারিয়েছেন মোট ১২ হাজার ৭৬ জন।

রাজ্যে বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ১ লক্ষ ২৪ হাজার ৯৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১,৩২৪ জন সক্রিয় রোগী বেড়েছে রাজ্যে। রাজ্যে সুস্থতার হার কিছুটা বেড়ে হয়েছে ৮৫.৭৩ শতাংশ।

দৈনিক সংক্রমণের হার ৩০ শতাংশের নীচে

গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা প্রায় ৪ হাজার ৪০০ বাড়ানো হয়েছে। এর পরেও নতুন আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েছে আটশোর কম, হারের বিচারে যা কুড়ি শতাংশের কম।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে টেস্ট হয়েছে ৬৪ হাজার ৫৫১টি। করোনাকালে এটাই রাজ্যে সর্বোচ্চ দৈনিক নমুনা পরীক্ষা। এর বিপরীতে সংক্রমণের হার ছিল ২৯.৭৬ শতাংশ। গত ১০ দিন ধরে সংক্রমণের হার একটু একটু করে কমছে। এটা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতিরই লক্ষ্মণ।

রাজ্যের সামগ্রিক সংক্রমণের হার বর্তমানে রয়েছে ৮.৮০ শতাংশ। শুক্রবার পর্যন্ত মোট ১ কোটি ৮ লক্ষ ৪২ হাজার ২৬৯টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণায় কমল সক্রিয় রোগী

ক্রমাগত টেস্টের সংখ্যা বাড়ার পরেও গত ২৬ এপ্রিলের পর থেকে কলকাতা এবং উত্তর ২৪ পরগণার দৈনিক সংক্রমণ কার্যত এক জায়গাতেই ঘোরাঘুরি করছে। ১১ দিন ধরে সংক্রমণ এক জায়গায় রয়েছে মানে বিশেষজ্ঞরা অনেকেই মনে করছেন এই দুই জেলায় সংক্রমণ সম্ভবত চূড়ার কাছাকাছি চলে এসেছে। এ দিকে গত ২৪ ঘণ্টায় দুই জেলাতেই সক্রিয় রোগীর সংখ্যায় আরও পতন হয়েছে।

কলকাতায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৩,৯১৫ এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ৩,৯৫৭ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই দুই জেলায় সুস্থ হয়েছেন যথাক্রমে ৩,৯৮৩ এবং ৩,৯৬৯ জন। কলকাতায় ২৮ এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে।

কলকাতায় এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২ লক্ষ ১৮ হাজার ৯৫৬, উত্তর ২৪ পরগণায় মোট আক্রান্ত ২ লক্ষ ৫ হাজার ৬৫৬। কলকাতায় বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২৬ হাজার ১৭৩ জন এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ২৩ হাজার ৫১১ জন। দুই জেলায় মৃত্যু হয়েছে যথাক্রমে ৩,৬১৬ এবং ২,৯৭০ জনের।

উল্লেখ্য, কলকাতায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৯৬ এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ৪৫ জন সক্রিয় রোগী কমেছে।

রাজ্যের বাকি জেলার চিত্র

রাজ্যের বাকি জেলার করোনা পরিস্থিতি তো ভয়াবহই রয়েছে। কিন্তু সব জেলাতেই গত কয়েক দিন ধরে সংক্রমণে একটা স্থিতাবস্থা লক্ষ করা যাচ্ছে। অন্য দিকে, বেশ কয়েকটি জেলায় দৈনিক সংক্রমণকে ছাপিয়ে যাচ্ছে দৈনিক সুস্থতা। ফলে সেখানে পরিস্থিতির কিঞ্চিৎ উন্নতিও হচ্ছে।

কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণা বাদে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যের অন্যান্য জেলায় নতুন সংক্রমণ এবং সুস্থতার সংখ্যা কেমন ছিল, দেখে নিন।

১) আলিপুরদুয়ার

নতুন করে আক্রান্ত – ৬৭

সুস্থ হলেন – ৬৪

২) কোচবিহার

নতুন করে আক্রান্ত – ২৭২

সুস্থ হলেন – ১৯১

৩) দার্জিলিং

নতুন করে আক্রান্ত – ৬৪১

সুস্থ হলেন – ৪৯৮

৪) কালিম্পং

নতুন করে আক্রান্ত – ২৫

সুস্থ হলেন – ৪৩

৫) জলপাইগুড়ি

নতুন করে আক্রান্ত – ৩৮৯

সুস্থ হলেন – ২০৫

৬) উত্তর দিনাজপুর

নতুন করে আক্রান্ত – ৩২১

সুস্থ হলেন – ২৮৪

৭) দক্ষিণ দিনাজপুর

নতুন করে আক্রান্ত – ৩০১

সুস্থ হলেন -১৬৯

৮) মালদহ

নতুন করে আক্রান্ত – ৪৫৯

সুস্থ হলেন – ৬০৯

৯) মুর্শিদাবাদ

নতুন করে আক্রান্ত – ৪০৬

সুস্থ হলেন – ৬৩৮

১০) নদিয়া

নতুন করে আক্রান্ত – ৮৯৫

সুস্থ হলেন – ৭১৩

১১) বীরভূম

নতুন করে আক্রান্ত – ৮২৭

সুস্থ হলেন – ৭৮৪

১২) পশ্চিম বর্ধমান

নতুন করে আক্রান্ত – ৮৯২

সুস্থ হলেন – ৮৬১

১৩) পূর্ব বর্ধমান

নতুন করে আক্রান্ত – ৮০২

সুস্থ হলেন – ৪১৯

১৪) বাঁকুড়া

নতুন করে আক্রান্ত – ৩৮৭

সুস্থ হলেন – ৩৪৮

১৫) পুরুলিয়া

নতুন করে আক্রান্ত – ২৯৫

সুস্থ হলেন – ২৬৩

১৬) পূর্ব মেদিনীপুর

নতুন করে আক্রান্ত – ৬৯২

সুস্থ হলেন – ৫৩২

১৭) পশ্চিম মেদিনীপুর

নতুন করে আক্রান্ত – ৬৫৩

সুস্থ হলেন – ৩২৪

১৮) ঝাড়গ্রাম

নতুন করে আক্রান্ত –১২৪

সুস্থ হলেন -১০৩

১৯) দক্ষিণ ২৪ পরগণা

নতুন করে আক্রান্ত – ৯৩৭

সুস্থ হলেন – ৯২১

২০) হুগলি

নতুন করে আক্রান্ত – ৯৯২

সুস্থ হলেন – ৮৮৭

২১) হাওড়া

নতুন করে আক্রান্ত – ৯৩৪

সুস্থ হলেন – ৯৪৮

স্বস্তির খবর হল দৈনিক সংক্রমণের থেকে সুস্থতার সংখ্যা বেশি হওয়ায় গত ২৪ ঘণ্টায় সক্রিয় রোগী কমেছে কালিম্পং, মালদহ, মুর্শিদাবাদ এবং হাওড়ায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.