এক ধাক্কায় অনেকটাই পড়ল পশ্চিমবঙ্গের দৈনিক সংক্রমণ, ২২ মার্চের পর সব থেকে কম নতুন আক্রান্ত কলকাতায়

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক: পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতির ব্যাপক উন্নতি হল মঙ্গলবার। গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষা অনেকটা বাড়ানো হলেও ব্যাপক পড়ল নতুন সংক্রমণ। এর মধ্যে কলকাতায় নতুন আক্রান্তের সংখ্যা ২২ মার্চের পর সব থেকে কম রেকর্ড করা হল। সক্রিয় রোগীর সংখ্যা আরও কিছুটা কমল রাজ্যে। বাড়েনি মৃতের সংখ্যা।

রাজ্যের কোভিড পরিস্থিতি

পশ্চিমবঙ্গের স্বাস্থ্য দফতরের প্রকাশিত বুলেটিন অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় গোটা রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১ হাজার ৫৯৫ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১৪ লক্ষ ৯৮ হাজার ৩০৫।

গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ২৪ জন। এর ফলে এখনও পর্যন্ত রাজ্যে মোট কোভিডজয়ীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৪ লক্ষ ৫৯ হাজার ৫১০ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে রাজ্যে। রাজ্যে এখনও পর্যন্ত কোভিডে প্রাণ হারিয়েছেন মোট ১৭ হাজার ৬৭৯ জনের। রাজ্যে মৃত্যুহার রয়েছে ১.১৮ শতাংশ।

রাজ্যে বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ২১ হাজার ১১৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৬৪ জন সক্রিয় রোগী কমেছে রাজ্যে। রাজ্যে সুস্থতার হার রয়েছে ৯৭.৪১ শতাংশ।

দৈনিক সংক্রমণের ৩ শতাংশ

সংক্রমণের দাপট কতটা রয়েছে সেটা ভালো করে বুঝতে গেলে দৈনিক সংক্রমণের হারের দিকে তাকাতে হয়। প্রতি ১০০ টেস্টে কত জনের রিপোর্ট পজিটিভ হচ্ছে, সেটাকেই সংক্রমণের হার বলে। এই হারটা যত কমবে, বুঝতে হবে কোভিডের দাপটও ক্রমশ নিষ্প্রভ হচ্ছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় রাজ্যে টেস্ট হয়েছে ৫৩ হাজার ১৬৬টি। গতকালের থেকে তিন হাজার বেশি টেস্ট হওয়ার পরেও সংক্রমণ কমেছে প্রায় ১৭০। ফলত এ দিন সংক্রমণের হার ছিল ৩ শতাংশ। গত সপ্তাহে কার্যত এক জায়গায় ঘোরাঘুরি করছিল সংক্রমণের হার। মঙ্গলবার সেটা অনেকটাই কমল।

কলকাতা ও উত্তর ২৪ পরগণার পরিস্থিতি

২২ মার্চের পর সব থেকে কম নতুন সংক্রমণ রেকর্ড করল কলকাতা। অন্য দিকে উত্তর ২৪ পরগণাতেও সংক্রমণ অনেকটাই কম রেকর্ড করা হয়েছে। দুই জেলায় কমেছে সক্রিয় রোগীও।

কলকাতায় গত ২৪ ঘণ্টায় ১৩১ এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ১৭৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এই দুই জেলায় সুস্থ হয়েছেন যথাক্রমে ১৭৪ এবং ২৪৮ জন। কলকাতায় ৭ আর উত্তর ২৪ পরগণায় ১১ জন কোভিডরোগীর মৃত্যু হয়েছে।

কলকাতায় এখন মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩ লক্ষ ৭ হাজার ৯৫৬, উত্তর ২৪ পরগণায় মোট আক্রান্ত ৩ লক্ষ ১৫ হাজার ৯২২। কলকাতায় বর্তমানে সক্রিয় রোগী রয়েছেন ১ হাজার ৭০১ জন এবং উত্তর ২৪ পরগণায় ২ হাজার ৫৬০ জন। দুই জেলায় মৃত্যু হয়েছে যথাক্রমে ৪৯০৮ এবং ৪৪৬৯ জনের।

রাজ্যের বাকি জেলার চিত্র

দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে সংক্রমণ কমার গতি উত্তরবঙ্গের তুলনায় অনেকটাই বেশি। উত্তরবঙ্গে দ্বিতীয় ঢেউয়ের দাপট দক্ষিণবঙ্গের অনেক পরে শুরু হওয়ার কারণে এমনটা হতে পারে বলে করা হচ্ছে। তবে সোমবারের থেকে কম সংক্রমণ রেকর্ড করেছে বেশির ভাগ জেলা। বিস্তারিত তথ্য দেখে নিন।

১) আলিপুরদুয়ার

নতুন করে আক্রান্ত – ৩৪

সুস্থ হলেন – ৩৫

২) কোচবিহার

নতুন করে আক্রান্ত – ৯৮

সুস্থ হলেন –১০১

৩) দার্জিলিং

নতুন করে আক্রান্ত – ১৫৯

সুস্থ হলেন – ১৭৪

৪) কালিম্পং

নতুন করে আক্রান্ত – ২৩

সুস্থ হলেন – ২১

৫) জলপাইগুড়ি

নতুন করে আক্রান্ত – ৯৩

সুস্থ হলেন – ১২৬

৬) উত্তর দিনাজপুর

নতুন করে আক্রান্ত – ২২

সুস্থ হলেন – ৩০

৭) দক্ষিণ দিনাজপুর

নতুন করে আক্রান্ত – ১৪

সুস্থ হলেন – ২২

৮) মালদহ

নতুন করে আক্রান্ত –৪

সুস্থ হলেন – ১৪

৯) মুর্শিদাবাদ

নতুন করে আক্রান্ত –১০

সুস্থ হলেন – ১৫

১০) নদিয়া

নতুন করে আক্রান্ত – ৬২

সুস্থ হলেন –১০৫

১১) বীরভূম

নতুন করে আক্রান্ত – ২৪

সুস্থ হলেন – ২১

১২) পশ্চিম বর্ধমান

নতুন করে আক্রান্ত –৪৮

সুস্থ হলেন – ৫১

১৩) পূর্ব বর্ধমান

নতুন করে আক্রান্ত – ৪৩

সুস্থ হলেন – ৫৬

১৪) বাঁকুড়া

নতুন করে আক্রান্ত – ৭৯

সুস্থ হলেন – ৭৭

১৫) পুরুলিয়া

নতুন করে আক্রান্ত –৮

সুস্থ হলেন – ৬  

১৬) পূর্ব মেদিনীপুর

নতুন করে আক্রান্ত – ১১০

সুস্থ হলেন – ১৮৯

১৭) পশ্চিম মেদিনীপুর

নতুন করে আক্রান্ত –১৬৭

সুস্থ হলেন – ১৩৭

১৮) ঝাড়গ্রাম

নতুন করে আক্রান্ত – ৪৭

সুস্থ হলেন –৪৫

১৯) দক্ষিণ ২৪ পরগণা

নতুন করে আক্রান্ত – ১২৮

সুস্থ হলেন – ১২৬

২০) হুগলি

নতুন করে আক্রান্ত – ৫২

সুস্থ হলেন – ১২৬

২১) হাওড়া

নতুন করে আক্রান্ত – ৬৩

সুস্থ হলেন – ১২৫

আরও পড়তে পারেন মডার্নার কোভিড টিকা ভারতে আমদানি করতে পারবে সিপলা

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন