বৃষ্টি নেমেছে কলকাতায়।

কলকাতা: এমন দিন দক্ষিণবঙ্গের শীতে বেশি আসে না, যখন দিনে একবারের জন্যও কুড়ির গণ্ডি পেরোতে পারে না সর্বোচ্চ তাপমাত্রা। মঙ্গলবার এরকমই হল। দুপুর পর্যন্ত ঝিরিঝিরি বৃষ্টি এবং সারাদিন মেঘলা আকাশের দোসর হিসেবে থাকল কনকনে ঠাণ্ডা হাওয়া। যার ফলে কলকাতার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড হল ১৮.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। শুধু কলকাতাই নয়, দক্ষিণবঙ্গের কোনো জায়গাতেই কুড়ি পেরোয়নি পারদ।

একবার দেখে নিন, মঙ্গলবার দক্ষিণবঙ্গের কোথায় কত ছিল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা।

বাঁকুড়া-১৭.১ বর্ধমান-১৭.১ আসানসোল-১৬.৪ শ্রীনিকেতন-১৬.৭ দিঘা-১৮ ডায়মন্ড হারবার-১৯ মেদিনীপুর-১৭।

সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বাড়তে না পারায় সারাদিন শীতে জবুথবু ছিল গোটা দক্ষিণবঙ্গ। বিশেষ করে পশ্চিমাঞ্চলের জায়গাগুলি, সেখানে পারদ ছিল পনেরোর আশেপাশে। সাধারণ মানুষকে কাঁপিয়ে দিয়েছে উত্তরপশ্চিম দিক থেকে বয়ে আসা কনকনে হাওয়া। তবে এবার খুশির খবর। বুধবার থেকেই রোদের মুখ দেখতে পারবেন দক্ষিণবঙ্গবাসী।

আরও পড়ুন ফের তুষারপাত সান্দাকফুতে, জোর বৃষ্টি উত্তরবঙ্গে

মঙ্গলবার সকালেই ফেটাই দুর্বল হয়ে মামুলি নিম্নচাপে রূপান্তরিত হয়েছিল। তখন এটি ওড়িশা উপকূলের কাছে অবস্থান করছিল। মঙ্গলবার রাতের মধ্যে নিম্নচাপটি বিলীন হয়ে যাবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর। তবে নিম্নচাপ থেকে তৈরি হওয়া একটি অক্ষরেখা উত্তরপূর্ব ভারত পর্যন্ত বিস্তৃত থাকার ফলে বুধবার দুপুর পর্যন্ত উত্তরপূর্ব ভারতে বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

দক্ষিণবঙ্গে আর বৃষ্টির কোনো সম্ভাবনা নেই। মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকেই মেঘমুক্তি হচ্ছে আকাশের। বুধবার সকাল থেকে রোদের দেখা মিলবে। আবহাওয়া দফতর জানিয়েছে এর ফলে একদিকে যেমন সর্বোচ্চ তাপমাত্রা বেড়ে ২৪-২৫-এর কাছাকাছি পৌঁছে যাবে, তেমনই সর্বনিম্ন তাপমাত্রা কমবে হুহু করে। ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে কলকাতার পারদ ১১-১২ ডিগ্রিতে নেমে যেতে পারে।

তবে নিম্নচাপের প্রভাবে বাতাসে কিছু জলীয় বাষ্প থেকে যাওয়ায়, আগামী দু’দিন সকালে গোটা রাজ্যেই ঘন কুয়াশা হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতর।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here