Coca-Cola buy ‘Himsagar’ and ‘Langra’. West Bengal’s

ওয়েবডেস্ক: আগামী ২০২৩-এর মধ্যে কোকা-কোলার ফ্রুট ড্রিঙ্কস ‘মাজা’ প্রায় ৬৪,০০০ কোটি টাকার ব্র্যান্ডে পরিণত হতে চলেছে। এর নেপথ্যে যেমন রয়েছে পণ্যটিকে নিয়ে সংস্থার বাড়তি আগ্রহ তেমনই রয়েছে এই ব্র্যান্ডের প্রতি ক্রেতার চাহিদা। সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্তমানে মাজার জন্য কোকা-কোলা বছরে প্রায় এক লক্ষ মেট্রিক টন আম কেনে। আগামী ২০২৩-এর মধ্যে এই ক্রয় পরিমাণ প্রায় দ্বিগুণে পৌঁছে যাবে। যে কারণে এত দিন প্রয়োজনীয় আমের জন্য পশ্চিমবঙ্গের উপর নির্ভর না করলেও এ বার তাদের চাহিদা পূরণের অভিমুখ হয়ে উঠতে চলেছে এই রাজ্যই।

সংস্থা জানিয়েছে, তারা যদি যে দু’লক্ষ মেট্রিক টন আম বাজার থেকে কিনবে তার দাম ১১০০ কোটি টাকা, যা থেকে লাভবান হবেন সারা দেশের প্রায় এক লক্ষ আম চাষি। কিন্তু এতে রাজ্যের কতটা লাভ হবে?

সংস্থা জানিয়েছে, এর আগে নিজেদের পণ্য উৎপাদনে কোকা-কোলা কখনোই পশ্চিমবঙ্গের আম ব্যবহার করেনি। মূলত আলফানসো জাতীয় আমের পানীয় তৈরি করে এসেছে এত দিন। এখন বাজারের চাহিদার কথা মাথায় রেখে তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছে, বাংলার হিমসাগর অথবা ল্যাংড়ার মতো সুস্বাদু এবং সস্তা আমের পৃথক ফ্রুট ড্রিঙ্কস তৈরি করবে কোকা কোলা। এর ফলে মুর্শিদাবাদ বা মালদহ-সহ বাংলার বিস্তীর্ণ এলাকার আম চাষিরা উপকৃত হবেন।

এমনতি পশ্চিমবঙ্গে বছরে গড়ে আম উৎপাদিত হয় সাত লক্ষ টন। কোনো কোনো বছর পরিবেশ-পরিস্থিতি সহায় থাকলে সেই উৎপাদন পৌঁছে যায় ১০ লক্ষ টনেও। ফলে কোকা-কোলার মতো বহুজাতিক সংস্থার কাছে সেই আম সস্তা দরে কিনে নেওয়াটা কোনো সমস্যাই হবে না। সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, আম ছাড়াও বাংলার আনারস কেনার বিষয় নিয়ে আলোচনা চলছে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন