প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক:‌ ফের হদিশ মিলল ভাগাড়ের মাংসের। ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার দেগঙ্গায়। এই ঘটনায় নাম জড়িয়েছে টিটাগড়ের এক মাংস ব্যবসায়ীর।

উঁচু পাঁচিল দিয়ে ঘেরা একটি জায়গায় দিনের পর দিন কিছু লোকের আনাগোনা দেখে সন্দেহ হয়েছিল স্থানীয় বাসিন্দাদের। কিন্তু পাঁচিলের গেট বন্ধ থাকায় স্থানীয় বাসিন্দারা ভিতরে ঢুকতে পারেননি। অভিযোগ, দিন তিনেক ধরে দুর্গন্ধ বেরোতে শুরু করে। ওই জায়গাটিতে কাকেদের জটলা বেড়ে যাওয়ায় এলাকাবাসীর সন্দেহ আরও বাড়তে থাকে। সোমবারও দুর্গন্ধ বেরোতে দেখে পাঁচিল টপকে জায়গাটির ভেতরে ঢোকে স্থানীয়রা। সেখানে গিয়ে তারা দেখে, লোকচক্ষুর আড়ালে কাটা হচ্ছে মৃত পশুদের দেহ।

আরও পড়ুন কলকাতায় উদ্ধার পাঁচ লক্ষ টাকার জালনোট, গ্রেফতার ২

খবর চাউর হতেই এলাকার বাসিন্দারা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। একটি গাড়িতে ভাঙচুর চালায় উত্তেজিত জনতা। কিন্তু অন্ধকারের সুযোগে কয়েকজন অভিযুক্ত সেখান থেকে পালিয়ে যায়। এরই  মধ্যে সোফিয়ার আলি নামে একজনকে ধরে ফেলে এলাকাবাসীরা। মারমুখী জনতার সামনে সোফিয়ার স্বীকার করে, সেখানে মৃত পশুর মাংস কাটা হচ্ছিল।

খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে দেগঙ্গা থানার পুলিশ। তাকে জেরা করে টিটাগড়ের এক ব্যবসায়ীর খোঁজ পেয়েছে পুলিশ। সেই ব্যবসায়ীই এই ভাগাড়ের মাংসের কারবার চালাচ্ছিল, এমনই অভিযোগ করে সোফিয়ার। স্থানীয়দের অভিযোগ, ভাগাড়ের এই মাংস বিভিন্ন হোটেলে পাচার করা হতো।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here