Madan Mitra and Arjun Singh
ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: লোকসভা ভোটের সময় থেকেই মাঝেমধ্যেই উতপ্ত হয়ে উঠছে উত্তর ২৪ পরগনার ভাটপাড়া। চলছে গুলি-বোমা। নতুন থানা উদ্বোধনের আগেই ফের উত্তপ্ত হয়ে ওঠে কাঁকিনাড়া। ভাটপাড়া ফাঁড়ি থেকে ঢিল ছোড়া দূরত্বে দুই পক্ষের বোমা-গুলির লড়াইয়ে প্রাণ যায় এক কিশোরের। স্থানীয় সূত্রে খবর, নিহত কিশোরের নাম রামবাবু সাউ। পুলিশের গুলিতে তার মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছেন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং।

আহতদের কল্যাণী জেএনএম হাসপাতালে ভরতি করা হলে এক জনের মৃত্যুর কথা জানায় পুলিশ। গুরুতর জখম হয়ে চিকিৎসাধানী আরও চার। এ দিন অর্জুন বলেন, পুলিশ কাঁদানে গ্যাসের শেল ফাটায়, গুলিও ছুড়েছে। সেই গুলিতে নিহত হয়েছে ওই কিশোর। তিনি বলেন, “ভাটপাড়ায় গুলি চালানোর জন্য পুলিশকে লেলিয়ে দিচ্ছেন মমতা।পুলিশকে নিরপেক্ষ হতে হবে”।

যদিও ভাটপাড়া বিধানসভার সাম্প্রতিক উপনির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী তথা রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী মদন মিত্র জানিয়েছেন, ঘটনার গুরুত্ব বিবেচনা করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসতে পুলিশ যথেষ্ট সদর্থক ভূমিকা পালন করেছে। কিন্তু পুলিশের গুলিতে কারো মৃত্যু ঘটেনি। পুলিশের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করছেন অর্জুন।

দুষ্কৃতীদের সংঘর্ষের পর গোটা এলাকা থমথমে। দুষ্কৃতীদের খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ। উদ্ধার হয়েছে প্রচুর পরিমাণে আগ্নেয়াস্ত্র এবং তাজা বোমা। এলাকায় বন্ধ দোকানপাট-বাজার। অন্য দিকে এ দিন ডিজির উপস্থিতিতে ভাটপাড়ার নতুন থানার উদ্বোধনের কথা থাকলেও তা বাতিল করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। মাঝ রাস্তা থেকে ফিরে যান ডিজি। গত রবিবার থেকেই টানা উত্তেজনা অব্যাহত রয়েছে ভাটপাড়ায়। অশান্তির জেরেই এ দিন নতুন থানার উদ্বোধন স্থগিত রাখা হল বলে জানা গিয়েছে।

নবান্ন সূত্রে খবর, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে ভাটপাড়ার ঘটনা নিয়ে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক চলছে। সেখানে উপস্থিত রয়েছেন মুখ্যসচিব, ডিজি, এডিজি (আইন শৃঙ্খলা)-সহ অন্যান্য উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here