বোলপুর: প্রেম করতে গিয়ে ধরা পড়ে নিগৃহীত হল ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্র। যুবকের চুল কেটে মারধর চালালো মেয়ের বাড়ির লোকজন। খবর পেয়ে ছেলের বাড়ির লোকজন ছাত্রটিকে উদ্ধার করে বোলপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে। বীরভূমের সাঁইথিয়া থানার সোলেমানপুরের ঘটনা।

নিগৃহীত অভিজিত মালের বক্তব্য, ছোটো থেকেই সুস্মিতা মালের সঙ্গে পরিচয় অভিজিতের। কখন তা প্রেমে পরিণত হয়ে গেছে তা বুঝে উঠতে পারেনি সে নিজেও। ১৮ বছরের অভিজিত বোলপুরের একটি ইঞ্জিনিয়ারিং ও ম্যানেজমেন্ট কলেজের ছাত্র। হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট নিয়ে পড়াশোনা করে। সুস্মিতা পাশের গ্রাম কালুরায়পুরের বাসিন্দা। আলবাঁধা স্কুলের উচ্চমাধ্যমিকের ছাত্রী সে। বাবা কৃষ্ণ মাল রেলে কর্মরত। মঙ্গলবার দুই জনে বাড়ি থেকে পালিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করে। কিন্তু ধরা পড়ে যায় দুই জনে। মেয়ের বাবা তুলে নিয়ে এসে ছেলেটিকে মদ খাইয়ে মারধর করে ও চুল কেটে দেয়। একটি হাতও ভেঙে দেওয়া হয় অভিজিতের।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here