জেএনইউয়ের ধাঁচে হামলা এ রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়েও, আহত দুই

0

শ্রীনিকেতন: জেএনইউয়ের ধাঁচে এ বার হামলা চলল বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে। রাতের অন্ধকারে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ঢুকে হামলা চালানো হয়েছে। জেএনইউয়ের মতো এখানেও অভিযোগের তীর এবিভিপির দিকে।

বুধবার রাতে ক্যাম্পাসে বহিরাগতদের নিয়ে ঢুকে এবিভিপি সদস্যরা এসএফআইয়ের উপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ। দু’পক্ষের হাতাহাতি শুরু হয়ে যায়। স্বপ্ননীল মুখোপাধ্যায় এবং ফাল্গুনী পান নামে দুই ছাত্র আহত হন। তাঁদের বিশ্ববিদ্যালয়ের পিয়ারসন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে, সেখানেও হামলা চালানো হয় বলে অভিযোগ।

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে রাজ্যসভার সাংসদ স্বপন দাশগুপ্তকে ঘিরে বিশ্বভারতীতে বিক্ষোভ দেখান এসএফআইয়ের সদস্যরা। তারই বদলা নিতে এবিভিপি এই হামলা করেছে বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে।

ফাল্গুনী পান জানিয়েছেন, বুধবার রাতের দিকে উপাচার্যের গাড়ির সঙ্গে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করে এবিভিপির একদল সদস্য। রাত ১১টা নাগাদ বিদ্যাভবনের ছাত্রাবাসে বামপন্থী ছাত্র সংগঠনের বৈঠক চলাকালীন বাঁশ, রড নিয়ে এসএফআই সদস্য স্বপ্ননীল মুখোপাধ্যায়ের উপর চড়াও হয়ে মারধর করতে থাকে।

আরও পড়ুন ওড়িশায় ট্রেন দুর্ঘটনা, লাইনচ্যুত আটটি বগি

হামলার প্রতিরোধ করে এসএফআইও। সংঘর্ষে জখম স্বপ্ননীলকে বিশ্ববিদ্যালয়ের হাসপাতালে ভরতি করা হলে সেখানেও চড়াও হয় এবিভিপি। এসএফআইয়ের অভিযোগ, উপাচার্যের মদতেই এবিভিপি এমন হামলা চালিয়েছে।

অনেকেই এই ঘটনার সঙ্গে জেএনইউয়ের ঘটনার মিল পাচ্ছেন। ঠিক এ ভাবেই গত ৫ জানুয়ারি এবিভিপি সদস্যরা রাতের অন্ধাকারে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ঢুকে বামপন্থী ছাত্র সংসদের ওপরে চড়াও হয়। গুরুতর আহত হন ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষ-সহ আরও অনেকে।

বুধবার রাতের হামলার ঘটনায় থানার অভিযোগ দায়ের করেছে এসএফআই। দোষীদের গ্রেফতার না করা হলে, বৃহত্তর আন্দোলনে তাঁরা শামিল হবেন বলে জানিয়েছেন পড়ুয়ারা।

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন