বীরভূম: রবিবার বীরভূমের নলহাটি তৃণমূল ব্লক সভাপতির বাড়িতে পৌঁছে গেলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায় (Mukul Roy)। সঙ্গে সঙ্গেই ফের জল্পনা ছড়াল ঝড়ের গতিতে।

এ দিন তৃণমূল (TMC) নেতা বিভাস অধিকারীর বাড়িতে গিয়ে মন্দির দর্শন করেন মুকুলবাবু। ঘটনায় প্রকাশ, এর পর গেস্ট হাউসে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের সামনে বলেন, “২০২১-এ বাংলায় বিজেপি ক্ষমতায় আসবে”।

Loading videos...

তবে তৃণমূল নেতা এবং মুকুলবাবু দু’জনেই এই ঘটনার সঙ্গে কোনো রাজনৈতিক যোগ নেই বলেই দাবি করেন।

মুকুলবাবু বলেন, “সৎসঙ্গের প্রতিষ্ঠাতা অনুকূল ঠাকুরকে মানুষ শ্রদ্ধা করেন। সেই আশ্রমে আমি এসেছিলাম। আমার শ্রদ্ধা-ভক্তি জানাতে এসেছিলাম। এর সঙ্গে রাজনীতির কোনো যোগ নেই”।

অন্য দিকে বিভাস বলেন, “বাড়ির মন্দিরে আসতে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম। এই আমন্ত্রণের সঙ্গে রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই। উনি একটা অন্য রাজনৈতিক দল করেন। আমি ব্যক্তিগত ভাবে তাঁকে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলাম”।

একই সঙ্গে তিনি বলেন, একটা দলে থেকে অন্য দলের সঙ্গে রাজনৈতিক যোগাযোগ রাখার পাত্র নন তিনি।

তবে জল্পনা গাঢ় হয় বাড়িতে মন্দির দর্শন করার পর তাঁদের রুদ্ধদ্বার বৈঠক ঘিরে। জানা যায়, মন্দির দর্শনের সময় সেখানে তৃণমূলের কর্মীরাও উপস্থিত ছিলেন।

[সাংবাদিকদের মুখোমুখি মুকুল রায়]

স্বাভাবিক ভাবেই একজন তৃণমূল নেতার বাড়িতে রুদ্ধদ্বার বৈঠকের পর মুকুলবাবুর “২০২১ সালে বাংলায় ক্ষমতায় আসবে বিজেপি (BJP)” মন্তব্য নিয়েও জলঘোলা হচ্ছে।

প্রশ্ন উঠছে, তবে কি মুকুল রায় তৃণমূলের দিকে পা বাড়াচ্ছেন? না কি তিনি বীরভূমে নিজের পুরনো রাজনৈতিক প্রভাবকে আবার চাঙ্গা করছেন?

আরও পড়তে পারেন: সাংবাদিক বৈঠক করে জল্পনায় জল ঢাললেন মুকুল রায়

এ ব্যাপারে রাজ্যের কৃষিমন্ত্রী এবং তৃণমূল নেতা আশিস বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “এই ঘটনার যথাযথ খোঁজ নিয়ে দেখব। বিষয়টা যদি সত্যিই ঘটে থাকে, তা হলে নিশ্চয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এমন ঘটনা নিয়ে দল তদন্ত করবে”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.