বসন্ত উৎসবে বহিরাগতদের ‘বেলেল্লাপনা’ ঠেকাতে বিশ্বভারতীর বেনজির সিদ্ধান্ত জন্ম দিল নতুন বিতর্কের

0
ফাইল ছবি

শ্রীনিকেতন: গত বছর দোলের দিন চূড়ান্ত বেলেল্লাপনা দেখেছিল রবীন্দ্রভূম শান্তিনিকেতন। বহিরাগতদের ‘তাণ্ডবে’ কার্যত ধুলোয় মিশে গিয়েছিল শান্তিনিকেতনের ঐতিহ্য। এ বার যাতে সেই পরিস্থিতি না তৈরি হয়, সে কারণে বেনজির সিদ্ধান্ত নিল বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ। যদিও এই সিদ্ধান্ত আবার নতুন বিতর্কেরও জন্ম দিয়েছে।

এ বারের বসন্ত উৎসব কেবলমাত্র বিশ্বভারতীর পড়ুয়া ও শিক্ষকশিক্ষিকাদের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকবে। অর্থাৎ বাইরের কেউ আর শান্তিনিকেতনের বসন্ত উৎসবে যোগ দিতে পারবেন না। শুধু তা-ই নয়, প্রথামাফিক দোলের দিন নয়, বরং অনেক আগেই সেরে ফেলা হচ্ছে বসন্ত উৎসব।

সোমবার জানানো হয়েছে, আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি শান্তিনিকেতনে বসন্ত উৎসব সেরে ফেলা হবে। এই দিনক্ষণ বদলের সিদ্ধান্তে যথেষ্ট বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে।

যদিও বসন্ত উৎসবে বহিরাগতের প্রবেশ নিষিদ্ধ হওয়ার ব্যাপারটিকে স্বাগত জানিয়েছেন বিশ্বভারতীর সঙ্গে জড়িতরা। কিন্তু বসন্ত উৎসবের দিন বদলে দেওয়ার ব্যাপারটি অনেকেই মেনে নিতে পারছেন না। এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের প্রশ্নের কোনো উত্তর দেননি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী।

আরও পড়ুন এটা বাঘ নাকি! সিসিটিভি ফুটেজ দেখে হতভম্ব কোন্নগরবাসী

উল্লেখ্য, গত বছরের বসন্তোৎসবে ভিড়ের চাপে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি দেখা দিয়েছিল। বেশ কয়েক জন অসুস্থ হয়ে পড়েন।এই ঘটনার পর সমালোচনার মুখে পড়ে বিশ্বভারতী। মনে করা হচ্ছে তার প্রেক্ষিতেই বহিরাগত আটকানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

কিন্তু ঠিক কী কারণে দোলের দিন না করে বসন্ত উৎসব তার কুড়ি দিন আগে হবে, সেই প্রশ্নের সদুত্তর এখনও পাওয়া যায়নি।

------------------------------------------------
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।
কোভিড১৯ বিরুদ্ধে লড়াইকে শক্তিশালী করুনপশ্চিমবঙ্গ সরকারের জরুরি ত্রাণ তহবিলে দান করুন।।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.