খবরঅনলাইন ডেস্ক: রবিবার থেকেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হচ্ছিল। সোমবার ব্যাপক তাণ্ডব-ভাঙচুর চলল বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয় (Bishwabharati University) এলাকায়। পৌষমেলার মাঠে পাঁচিল তোলাকে কেন্দ্র করে যাবতীয় গণ্ডগোলের সূত্রপাত। এই গণ্ডগোলের জেরে অনির্দিষ্ট কালের জন্য বিশ্বভারতী বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিলেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

সোমবার সকালে মেলার মাঠ ঘেরার প্রতিবাদে এলাকার হাজারখানেক মানুষ ভাঙচুর চালান বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী অফিসে। ভাঙা হয় বিশ্বভারতীর একটি গেটও।

Loading videos...

পৌষমেলার মাঠ ঘেরা নিয়ে রবিবার থেকেই উত্তপ্ত শান্তিনিকেতন (Santiniketan)। এ বছর পৌষমেলা হবে না বলে আগেই জানিয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। তার পর শনিবার থেকে শুরু হয় মেলার মাঠে পাঁচিল দেওয়ার কাজ। মেলার মাঠ ঘেরার প্রতিবাদ করেন স্থানীয় বাসিন্দাদের একটি বড়ো অংশ। ‘মেলার মাঠ বাঁচাও, শান্তিনিকেতন বাঁচাও’ নামে সোশ্যাল মিডিয়ায় পেজ তৈরি করে গত কয়েক দিন ধরেই শুরু হয়েছিল প্রতিবাদ।

মেলার মাঠ ঘেরার কাজ শুরু হলে রবিবার স্থানীয় ব্যবসায়ী সমিতি বাধা দেয়। বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ অভিযোগ করেন, ব্যবসায়ী সমিতি নির্মাণ কাজের ঠিকাদার এবং কর্মীদের মারধর করেছে। রবিবার মেলার মাঠ ঘেরার প্রতিবাদ করে মিছিলও বের করেন স্থানীয়রা। নাগরিক অধিকার রক্ষা কমিটির তরফে বোলপুর থানায় একটি এফআইআরও দায়ের করা হয়।  

সোমবার সকাল থেকে ফের নির্মাণের কাজ শুরু হলে প্রতিবাদ করতে জমায়েত হন এলাকার বাসিন্দারা। উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীর নির্দেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার আশা মুখোপাধ্যায়, বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক এবং বেসরকারি নিরাপত্তা কর্মীদের জমায়েত হওয়ার নির্দেশ দেন সোমবার সকালে। উপাচার্য মিছিল করে মেলার মাঠে পৌঁছোন সকাল ৯ টা নাগাদ এবং তাঁর উপস্থিতিতে পে লোডার দিয়ে শুরু হয় মেলার মাঠ ঘেরার জন্য নির্মাণের কাজ। সেই খবর পেয়েই সকাল ১০টা থেকে শান্তিনিকেতন-বোলপুর থেকে প্রচুর মানুষ জমা হন প্রতিবাদ করতে।

এর পরেই শুরু হয় তাণ্ডব। উত্তেজিত জনতার একটি বড়ো অংশ নির্মাণ সামগ্রী লন্ডভন্ড করে দেন। তার পর এলোপাথাড়ি ভাঙচুর চলে বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী ক্যাম্পে। সেই ক্যাম্প ভেঙে দেওয়া হয়। 

পৌষমেলার মাঠে পাঁচিল দেওয়ার নিয়ে প্রাক্তনীদের পাশাপাশি বর্তমান পড়ুয়ারাও ক্ষুব্ধ। এক পড়ুয়ার কথায়, ‘‘আমরা উপাচার্যের কাছে আবেদন করেছি, পৌষমেলার মাঠ পাঁচিল দিয়ে না ঘোরার জন্য। আবেদন না মানলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামব।’’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.