খঞ্জনী বাজিয়ে ছেড়ে দিলে! ২০২৪-এ ডোঙা উল্টে যাবে, খোঁচা অনুব্রত মণ্ডলের

0
অনুব্রত মণ্ডল। ফাইল ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: ২০১৯-এর লোকসভা ভোটের আগেও বিজেপি কেন্দ্রের ক্ষমতা দখল করতে পারবে না বলে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল (Anubrata Mondal)। এখন আবার তোড়জোড় চলছে ২০২৪-এর। এ বারও আগাম বার্তা দিয়ে রাখলেন তিনি।

অনুব্রতর ভবিষ্যদ্বাণী মেলেনি সে বার। তিনি বলেছিলেন, লোকসভা নির্বাচনে ৮০ থেকে ১০০-র বেশি আসন বিজেপি পাবে না। তবে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে কেন্দ্রের ক্ষমতায় প্রত্যাবর্তন ঘটেছিল বিজেপির। তাই বলে অনুব্রত থামার নন।

Loading videos...

পেট্রোপণ্যের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে জেলায় জেলায় প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করছে তৃণমূল। রবিবার এ বিষয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে নিশানা করেন অনুব্রত। তিনি বলেন, “শেষ হয়ে গেল ভারতবর্ষ। পেট্রোল ১০০ টাকা পেরিয়ে গেল। ডিজলেও ১০০ টাকা ছুঁইছুঁই। মনে হয় আর জন্মে কিছু অন্যায় করেছিলাম! ২০২৪-এ ডোঙা উল্টে যাবে। মিথ্যাবাদী দল (বিজেপি)। তোমরা বলেছিলে, ‘এই দেব, ওই দেব’। কই? রামকেও তো দিচ্ছ না। ধনুক দেবে, তাও দিলে না। খঞ্জনী বাজিয়ে ছেড়ে দিলে”।

এ দিন বোলপুরের দলীয় কার্যালয়ে বীরভূমের তৃণমূল সাংসদ শতাব্দী রায়ের (Satabdi Roy) সঙ্গে বৈঠক করেন অনুব্রত। ছিলেন জেলা কমিটির সদস্য এবং বিধায়কেরাও। সাম্প্রতিক অতীতে প্রায়শই অনুব্রত-শতাব্দীর দ্বন্দ্বের খবর প্রকাশ্যে এসেছে। এমনকী তাঁদের একে অপরের বিরুদ্ধে নাম না করে মুখ খুলতেও শোনা গিয়েছে। তবে বিধানসভা ভোটের পর থেকে এই নিয়ে দ্বিতীয় বার মুখোমুখি হলেন তাঁরা। স্বাভাবিক ভাবেই এখন একজোট হয়ে চলার ইঙ্গিতই মিলছে।

অন্য দিকে, বিধানসভা ভোটের ফলাফলের বিশ্লেষণে কয়েক সপ্তাহ আগেই বীরভূম জেলা নেতৃত্বে রদবদল করেছে তৃণমূল। জেলার ১১টি আসনের মধ্যে ১০টিতেই জয়ী হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। ১টি আসন পেয়েছে বিজেপি। পাশাপাশি ৬টি পুরসভার মধ্যে ৫টিতেই খারাপ ফল করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। সম্ভবত তার নিরিখেই জেলা কমিটিতে রদবদল। তার উপর নজরে রয়েছে ২০২৪!

আরও পড়তে পারেন: বছর ঘুরলেই বিধানসভা ভোট, উত্তরাখণ্ডে ‘৪ গ্যারান্টি’ অরবিন্দ কেজরিওয়ালের

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন