birds' death in vadaitala
পাখির ধারাবাহিক মৃত্যু। নিজস্ব চিত্র।
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়া: বাঁকুড়ার অন্যতম পর্যটনকেন্দ্র মুকুটমণিপুর, জঙ্গল পাহাড় আর নদী দিয়ে ঘেরা। কংসাবতী ও কুমারী নদীর সঙ্গমস্থল এশিয়ার দ্বিতীয় বৃহত্তম মাটির বাঁধও মুকুটমণিপুর। সেই মুকুটমণিপুর জলাধার সংলগ্ন প্রাকৃতিক সৌন্দর্যময় গোড়াবাড়ি এলাকার ভালাইতলা। স্থানীয়দের দাবি, গত কয়েক দিন ধরেই এই এলাকায় পঞ্চাশটিরও বেশি পাখি মারা গিয়েছে। কী কারণে পাখির মৃত্যু, তা নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে সন্দেহ দানা বাঁধছে। কারও কারও অভিযোগ, বটগাছে বিষ প্রয়োগ করে পাখি মারা হচ্ছে।

birds' epidemic
পাখির মৃত্যুমিছিল। নিজস্ব চিত্র।

স্থানীয় বাসিন্দা চন্দন সাহু বলেন, গোড়াবাড়ি গ্রামে ঢোকার মুখে ভালাইতলা এলাকার একটি প্রাচীন বটগাছে বিভিন্ন প্রজাতির অসংখ্য পাখি বাস করে। গত কয়েক দিন ধরে লক্ষ করছেন বসন্তবৌরি পাখি একের পর এক মারা যাচ্ছে। পাখি-মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। কেন এই মৃত্যু, বুঝতে পারছেন না এলাকাবাসীরা। কী কারণে পাখি-মৃত্যুর ঘটনা ঘটছে তা নিয়ে পূর্ণাঙ্গ তদন্তের দাবি জানানো হয়েছে এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে। এ ব্যাপারে প্রশাসনিক হস্তক্ষেপেরও দাবি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন হাজার ভক্তের মাথায় নারকেল ভাঙলেন পুরোহিত, সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল ভিডিও

স্থানীয় ব্যবসায়ী ধ্রুবরাজ খাঁড়ার সঙ্গে কথা বলে জানা গেল গত কয়েক দিন ধরেই তিনিও পাখি-মৃত্যুর ঘটনা লক্ষ করছেন। তাঁর অভিযোগ, কেউ বা কারা বটগাছের ফলে বিষ প্রয়োগ করছেন, তার ফলেই এমন ঘটনা ঘটছে। এ বিষয়ে খাতড়া বনাধিকারিক প্রবীর চক্রবর্তী বলেন, “দু’চারটে পাখি মৃত্যুর খবর পেয়েছি। বিষয়টি আমরা তদন্ত করে দেখছি।” তবে বট গাছে বিষ প্রয়োগের ঘটনা ঘটেছে বলে তাঁর কাছে কোনো খবর নেই বলেও জানান।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন