বিজেপি সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত। ফাইল ছবি

ওয়েবডেস্ক: সোনা বিতর্কে এই মুহূর্তে সরগরম রাজ্য রাজনীতি। ভোটের মুখে এই ইস্যু নিয়ে রাজ্যে সাংবিধানিক সংকট তৈরির চেষ্টা হচ্ছে বলে গুরুতর অভিযোগ তুলল বিজেপি। অন্যদিকে, এই ইস্যুতেই নির্বাচন কমিশনের কাছে নালিশ জানালেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

এই সোনা বিতর্ককে কেন্দ্র করে রবিবার অভিষেকের একটি সাংবাদিক বৈঠকের পরেই সরগরম হয়ে উঠেছে রাজনীতি। সোমবার আক্রমণের তীব্রতা আরও বাড়ালেন বিজেপির রাজ্যসভা সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত এবং শাহনওয়াজ হোসেন। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে কটাক্ষ করতেও ছাড়লেন না বিজেপি নেতারা। তাঁদের অভিযোগ, “রাজ্যে সাংবিধানিক সংকট তৈরি হওয়ার মতো পরিস্থিতি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করছেন।” রবিবার কাস্টমসের উদ্দেশে কয়েকটি প্রশ্ন ছুঁড়ে দিয়েছিলেন তৃণমূল সাংসদ। সোমবার তাঁর পালটা অভিষেক তথা রাজ্য পুলিশের উদ্দেশে প্রশ্ন ছুঁড়ল গেরুয়া শিবির।

আরও পড়ুন বিশ্বের অন্যতম ভয়ংকর জঙ্গিগোষ্ঠীর সাম্রাজ্য পতন?

কাস্টমসের এলাকায় পুলিশ কেন গিয়েছিল এবং কাস্টমসের আধিকারিকরা ব্যাগ তল্লাশি করতে চাইলে কেন তাদের বাধা দেওয়া হল কেন, সেই নিয়েই একাধিক প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন বিজেপি নেতারা। পুরো ঘটনাটির পুঙ্খনাপুঙ্খ তদন্তও চেয়েছে বিজেপি। এমনকী অভিষেকের সুরেই বিমানবন্দরের সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশ্যে আনার দাবি জানিয়েছে গেরুয়া শিবির।

রবিবার কেন্দ্রীয় শুল্ক দফতরকে পাল্টা চ্যালেঞ্জ ছোড়েন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, “২ কেজি কেন, ২ গ্রাম সোনা ছিল তা দেখাক ৷ প্রমাণ করতে পারলে রাজনীতি ছেড়ে দেব।” সেই সঙ্গে তাঁর আরও প্রশ্ন ছিল “সোনা যদি উদ্ধার হয়েই থাকে, তবে তা কেন বাজেয়াপ্ত করা হল না?” সেই সঙ্গে শুল্ক দফতরের বিরুদ্ধে স্ত্রীকে হেনস্থা করার অভিযোগও করেন অভিষেক।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here