BJP
প্রতীকী ছবি

কলকাতা: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সম্পর্কে বিজেপি-আরএসএসের অবস্থান যে ইতিবাচক নয়, বিভিন্ন মন্তব্যে সেটা প্রকাশ পেয়েছে। কিন্তু বাংলার মন পেতে রথযাত্রার সময়ে সেই রবীন্দ্রনাথেরই দ্বারস্থ হচ্ছে বিজেপি।

আসন্ন রথযাত্রা অভিযানে রবীন্দ্রনাথকে হাতিয়ার করেই বাঙালি আবেগকে কবজা করতে চাইছে গেরুয়া শিবির। রাজ্যে বিজেপির রথযাত্রার থিম সং তাই রবীন্দ্রসঙ্গীত। দলীয় সূত্রে খবর, রবি ঠাকুরের পূজা পর্যায়ের অতি চেনা ‘উড়িয়ে ধ্বজা অভ্রভেদী রথে, ওই-যে তিনি ওই-যে বাহির পথে’ গানটি নিয়ে বানানো হচ্ছে একটি ভিডিও। চলমান রথের সঙ্গেই বাজতে থাকবে ওই রবীন্দ্রসংগীত, সঙ্গে পর্দায় চলবে ভিডিও। রাজ্য বিজেপির অন্যতম সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু জানিয়েছেন, থিম সংয়ের সঙ্গে থাকা ভিডিওটি নির্মাণের কাজ চলছে।

এই মুহূর্তে রথযাত্রা নিয়ে রাজ্য বিজেপি ব্যস্ততা তুঙ্গে। সর্ব ভারতীয় বেশ কয়েক জন বিজেপি নেতা ইতিমধ্যেই ঘাঁটি গেড়েছেন এ রাজ্যে। ৪১ দিনের রথযাত্রা পর্বে অমিত শাহ থেকে বহু নামী-দামি মুখ আসার কথা। এ সবের মধ্যেই দিলীপ ঘোষরা চেষ্টা চালাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকেও হাজির করিয়ে গোটা চারেক জনসভা করাতে।

আরও পড়ুন কংগ্রেসকে ‘বনবাস’-এ পাঠানোর জন্য মমতাতেও আপত্তি নেই মোদীর!

এ ছাড়াও তারকাদের গ্রামেগঞ্জে এনে রথযাত্রাকে আরও আকর্ষণীয় করে তুলে সাধারণ মানুষের অংশগ্রহণ বাড়াতেও কসুর করছে না রাজ্য বিজেপি। এক ডজনেরও বেশি সেলিব্রিটিকে আনার চেষ্টা চলছে। যাঁদের মধ্যে রয়েছেন হেমা মালিনী, পুনম ধিলোঁর মতো মুম্বইয়ের তারকারা।

মোদী-শাহ ছাড়াও ছাড়াও হেভিওয়েটদের মধ্যে আসছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রাজনাথ সিং, অরুণ জেটলি, নীতিন গড়কড়ি, স্মৃতি ইরানি, রবিশঙ্কর প্রসাদ, পীযূষ গোয়াল, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ, ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব প্রমুখ।

৭ ডিসেম্বর কোচবিহার, ৯ ডিসেম্বর গঙ্গাসাগর ও ১৪ ডিসেম্বর তারাপীঠ থেকে মোট তিনটি রথ বের হবে। তিনটি রথেরই সূচনা করবেন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। রথযাত্রা শেষে সামনের বছর ১৬ জানুয়ারি ব্রিগেডে জনসভা করার কথা মোদীর।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here