বাংলায় এনআরসি চালুর পক্ষে বিজেপির হাতে নতুন অস্ত্র!

0
Mamata and Dilip on NRC
প্রতীকী গ্রাফিক্স ছবি

ওয়েবডেস্ক: সর্বশেষ ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস ব্যুরো (এনসিআরবি) -র তথ্য অনুসারে পশ্চিমবঙ্গে সর্বাধিক সংখ্যক ‘বিদেশি আসামি’ রয়েছে, যাদের বেশিরভাগই বাংলাদেশ থেকে এসেছে। এমনই হাতেগরম তথ্য বিজেপিকে রাজ্যে এনআরসি বাস্তবায়নের জন্য শক্তি সরবরাহ করছে বলে ওয়াকিবহাল মহলের ধারণা।

বিজেপি দীর্ঘ দিন ধরেই বাংলায় এনআরসি চালুর দাবিতে প্রচার চালিয়ে আসছে। তারা রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে আক্রমণের অন্যতম ইস্যু হিসাবে বেছে নিয়েছে এনআরসি-কে। বাংলাদেশ থেকে অবৈধ অনুপ্রবেশ বন্ধের দাবি নিয়েই ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনেও রাজ্যের ৪২টি লোকসভা আসনের মধ্যে ১৮টি দখল করে নিয়েছে বিজেপি। স্বাভাবিক ভাবেই ২০২১-এ রাজ্য বিধানসভার ভোটেও রাজনৈতিক পালাবদলের ডাক দিয়ে এখন থেকেই ময়দানে নেমে পড়েছে গেরুয়া শিবির। দলীয় সূত্রে খবর, উৎসবের মরশুম শেষ হলেও নতুন করে এনআরসির স্বপক্ষে এনসিআরবির রিপোর্টের উপর নতুন করে প্রচার শুরু হবে।

২০১৭ সালের এনসিআরবির তথ্য অনুসারে, সমস্ত রাজ্যের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে সর্বাধিক বিদেশি বন্দি রয়েছে।

ওই রিপোর্ট অনুযায়ী, রাজ্যের জেলে ১,৩৭৯ জন বিদেশি বন্দি রয়েছে। অন্য দিকে পশ্চিমবঙ্গেই সারা দেশের মোট বিদেশি বন্দিদের মধ্যে প্রায় ৬১.৯ শতাংশ রয়েছে।

এই মাসের শুরুর দিকে প্রকাশিত ওই পরিসংখ্যান অনুযায়ী, মহারাষ্ট্রে প্রায় ৭ শতাংশ বিদেশি বন্দি এবং উত্তরপ্রদেশ প্রায় ৪.৮ শতাংশ। তবে পশ্চিমবঙ্গ সবাইকে পিছনে ফেলেছে।

তথ্য বলছে, “ভারতে সর্বাধিক বিদেশি অপরাধী বাংলাদেশ থেকে এসেছে। ভারতীয় কারাগারে যখন মোট ১,৪০৩ জন বাংলাদেশি দণ্ডিত রয়েছে, তখন শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গে সে দেশের ১,২৮৪ জন বন্দি রয়েছে”।

এনসিআরবি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অধীনে সংস্থা এবং ভারতীয় দণ্ডবিধি এবং দেশের বিশেষ ও স্থানীয় আইন দ্বারা সংজ্ঞায়িত অপরাধের তথ্য সংগ্রহ ও বিশ্লেষণের জন্য দায়বদ্ধ রয়েছে এনসিআরবি।

পশ্চিমবঙ্গ থেকে “অনুপ্রবেশকারীদের” বিতাড়িত করার জন্য ন্যাশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেন্স বা এনআরসি জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছে বিজেপি। দল জানিয়েছে, রাজ্যের জেলগুলিতে বন্দি বাংলাদেশি বন্দিদের সম্পর্কে এনসিআরবির প্রকাশিত তথ্য প্রমাণ করে যে পশ্চিমবঙ্গের জন্য এনআরসি আবশ্যক। বিজেপির তরফে এমনও দাবি করা হয়েছে, তৃণমূল রাজ্যটিকে “অনুপ্রবেশকারী ও জিহাদিদের নিরাপদ আশ্রয়স্থলে” পরিণত করেছে।

এ প্রসঙ্গে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “এনআরসিবি-র পরিসংখ্যানগুলি প্রমাণ করে যে বাংলাদেশ থেকে ধারাবাহিকভাবে অবৈধ অনুপ্রবেশ আমাদের জাতীয় সুরক্ষাকে ঝুঁকিপূর্ণ করে তুলছে। এই তথ্য এনআরসি-র জন্য আমাদের দাবির প্রবণতা বাড়াতে সহায়তা করবে”।

আরও পড়ুন: শিল্পা শেঠির ব্যবসায়ী স্বামী রাজ কুন্দ্রাকে ফের ইডির তলব!

তবে তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় জানিয়েছেন, “তৃণমূল সরকার বা অন্য কোনও রাজ্য সরকার কি আন্তর্জাতিক সীমান্তের দেখাশোনা করে? এটি এখন বিজেপির নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকারের দেখার কথা। ফলে যদি কোনও বিদেশি এ রাজ্যে ঢুকে যায়, তবে সেটা বিজেপি সরকারের দোষ”।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.