লোকসভা নির্বাচন ২০১৯

ওয়েবডেস্ক: পঞ্চায়েত ভোটে আশাতীত ফল করার পর যথারীতি রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব মনোনিবেশ করেছেন আগামী লোকসভা নির্বাচনের রণকৌশল নির্মাণে। তবে শুরুতেই রাজ্যের তিনটি জেলায় বিজেপি যে একটি আসনও দখল করতে পারবে না, সে বিষয়ে প্রায় নিশ্চিত দিলীপ ঘোষ বা মুকুল রায়ের মতো বিজেপি নেতারা। তাঁরা দলের সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহের কাছে পাঠানো রিপোর্টে সে কথাই উল্লেখ করেছেন বল দলীয় সূত্রে খবর।

বেশ কয়েক দিন ধরে সংবাদ মাধ্যমে বহুচর্চিত বিষয় হয়ে উঠেছে, বাংলা থেকে অমিত শাহের ২২টি লোকসভা আসনে জয়ের আর্জি। তিনি দলের রাজ্য নেতৃত্বকে সেই মর্মে নির্দেশ দেওয়ার পর দিলীপবাবুরা তাঁর কাছে সম্ভাব্য জয়ের ২২টি আসনের তালিকা পাঠিয়েছে। কিন্তু দক্ষিণ ২৪ পরগনা, মুর্শিদাবাদ এবং মালদহের ন’টি আসনের কোনোটিতেই তাঁরা জয়ের সম্ভাবনা দেখছেন না।

দক্ষিণ ২৪ পরগনার চারটি আসন জয়নগর, মথুরাপুর, ডায়মন্ড হারবার এবং যাদবপুর। এই চারটি আসনই বর্তমানে রয়েছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। অন্য দিকে মুর্শিদাবাদের তিনটি আসনের মধ্যে বহরমপুর এবং জঙ্গিপুর রয়েছে জাতীয় কংগ্রেস এবং মুর্শিদাবাদ লোকসভায় গত ২০১৪ ভোটে জিতেছিলেন সিপিএম প্রার্থী। মালদহের দু’‌টি আসনই বর্তমানে জাতীয় কংগ্রেসের দখলে।

অন্য দিকে এই ন’টি আসনের মধ্যে এক মাত্র মালদহ দক্ষিণ কেন্দ্রটিতে গত লোকসভা নির্বাচনে প্রাপ্ত ভোটের নিরিখে বিজেপি প্রার্থী দ্বিতীয় স্থানে থাকলেও সেখানে বর্তমান পরিস্থিতিতে জয়ের আশা ত্যাগ করছে বিজেপি। কারণ, কংগ্রেসের দখলে থাকা ওই আসনে এ বার মূলত লড়াই হতে পারে দুই কংগ্রেসের মধ্যেই। তৃণমূলের যুব নেতা শুভেন্দু অধিকারী ওই জেলার পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব পাওয়ার পর আমূল বদলে যেতে শুরু করেছে রাজনৈতিক চিত্র। মুর্শিদাবাদেও প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর সঙ্গে সমানে-সমানে টক্কর দেওয়ার চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন শুভেন্দুবাবু।

বাকি আটটি আসনে বিজেপির যেমন জোরালো সাংগঠনিক শক্তি নেই, তেমনই সদ্য শেষ হওয়া পঞ্চায়েত ভোটেও উল্লেখযোগ্য হারে ভোট বাড়েনি গেরুয়া শিবিরের। দক্ষিণ ২৪ পরগনার জয়নগরে পঞ্চায়েতে জিতে খাতা খুললেও লোকসভাগত ভাবে ভোটের হারে তেমন কোনো প্রভাব দেখা যায়নি বলেই মনে করছে দল। ফলে ওই জেলায় যে তৃণমূল কংগ্রেসের মূল প্রতিপক্ষ হিসাবে বামফ্রন্টই থেকে যাবে, তেমন মতও উঠে এসেছে।

সব মিলিয়ে আপাতত এই তিন জেলার ন’টি আসনকে জয়ের তালিকা থেকে বাইরে রেখেই অমিত শাহের কাছে রিপোর্ট পাঠিয়েছে ৬, মুরলীধর সেন লেনের ম্যানেজাররা।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here