suvendu adhikari and mukul roy
শুভেন্দু অধিকারী, মুকুল রায়। প্রতীকী ছবি

কলকাতা: মুকুল রায়ের বিধায়ক পদ খারিজের শুনানিতে মুকুল নিজে এবং বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অনুপস্থিত ছিলেন। সে কারণে এই শুনানির দিন আবারও পিছিয়ে গেল। আগামী ২৮ এপ্রিল বিধানসভায় স্পিকারের ঘরে পরবর্তী শুনানির দিন ঠিক হয়েছে। শুভেন্দু বাঃ মুকুল কেউ হাজির না থাকলেও উপস্থিত ছিলেন দু’পক্ষেরই আইনজীবীরা।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কৃষ্ণনগর উত্তর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে বিজেপির প্রতীকে জয়লাভ করেছেন মুকুল। তবে নির্বাচনের ফল প্রকাশের কিছু দিনের মধ্যেই তৃণমূলে যোগদান দেন তিনি। এর পর মুকুলের বিধায়ক পদ খারিজের দাবি তোলেন শুভেন্দু। স্পিকার বিমানের কাছে অভিযোগও করেন তিনি।

এ নিয়ে শুনানির পরে বিরোধী দলনেতার অভিযোগ নাকচ করে দেন স্পিকার। বিধানসভার পাশাপাশি এই মামলা প্রথমে কলকাতা হাই কোর্ট এবং পরে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত গড়ায়। স্পিকারকে বিষয়টি দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য বলে সুপ্রিম কোর্ট। ১১ ফেব্রুয়ারি স্পিকার জানান, মুকুল বিজেপিতেই রয়েছেন। তবে স্পিকারের সে ‘মন্তব্য’ বাতিল করে চার সপ্তাহের মধ্যে বিষয়টি পুর্নবিবেচনার জন্য নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।

মুকুলের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানানোর সময় তৃণমূলের ফেসবুক পেজের একটি ভিডিয়োও স্পিকারের কাছে জমা দিয়েছিলেন শুভেন্দু। তাতে তাঁর তৃণমূলে যোগদানের অনুষ্ঠান প্রচার করা হয়েছে বলে দাবি। তবে মুকুলের আইনজীবীর পাল্টা দাবি, সেটি সৌজন্য সাক্ষাৎ ছিল।

শুক্রবার মুকুলের আইনজীবী বলেন, ‘‘আমরা আগেই জানিয়েছিলাম। এক বার সৌজন্য বিনিময় করতে গিয়েছিলেন (মুকুল)। ওঁরা যে দাবি করেছে, তা আমরা কখনওই স্বীকার করিনি।।”

আরও পড়তে পারেন:

দিল্লি যাচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের সম্ভাবনা

এলআইসি আইপিও নিয়ে অনুমান বদল, সংগ্রহের পরিমাণ অর্ধেকে নামিয়ে আনল কেন্দ্র

থার্মাল স্ক্যানিং ছাড়া স্কুলে ঢোকা নিষেধ, নয়া নির্দেশিকা দিল্লি সরকারের

ফের দময়ন্তীতে আস্থা হাইকোর্টের, নামখানা ধর্ষণ কাণ্ডেও নজরদারির নির্দেশ

জামিন পেলেন লালুপ্রসাদ যাদব, ১০ লক্ষ টাকার বিনিময়ে জেল থেকে মুক্তি

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন