শক্তি কম, তবুও ফণীর থেকে ভয়ংকর হয়ে উঠতে পারে বুলবুল

0

ওয়েবডেস্ক: এক বছরের মধ্যে দু’টি ঘূর্ণিঝড়ের সম্মুখীন হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ, সাম্প্রতিক ইতিহাসে এই ধরনের ঘটনা খুব একটা ঘটেনি। কিন্তু এ বার সেটা হতে চলেছে।

গত মে মাসেই ওড়িশা হয়ে বাংলায় হানা দিয়েছিল ঘূর্ণিঝড় ফণী। তার প্রভাবে অবশ্য এ রাজ্যে তেমন ক্ষয়ক্ষতি খুব একটা হয়নি। উপকূলবর্তী অঞ্চলে কিছুটা প্রভাব পড়েছিল ঠিকই, কিন্তু বড়োসড়ো ক্ষতির থেকে বেঁচে যায় বাংলা।

ফণী হুমকি দিয়েও বিশেষ কিছুই করতে পারেনি, এই নিয়ে অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় হাসাহাসি করেছিলেন। ব্যঙ্গ করেছিলেন আবহাওয়া দফতরকে নিয়েও।

যা-ই হোক, সেই ঘূর্ণিঝড় ফণীর থেকে এ বারের ঘূর্ণিঝড় বুলবুল ক্ষমতায় কম শক্তিশালী। তবুও এর থেকে মারাত্মক ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে।

এর কারণ, ফণী বাংলায় ঢুকেছিল স্থলভূমির ওপর দিয়ে। সে প্রথমে পুরী দিয়ে স্থলভুমিতে প্রবেশ করে। তার পর স্থলভূমি দিয়েই এগিয়ে আসে বাংলার দিকে। জলপথে না ঢোকার ফলে বাংলার উপকূলে সামুদ্রিক জলোচ্ছ্বাস দেখা যায়নি।

কিন্তু বুলবুলের ক্ষেত্রে উলটোটা হতে চলেছে। এই ঝড়টি জলপথে সুন্দরবন অঞ্চলে ঢুকবে। ফলে ব্যাপক জলোচ্ছ্বাস দেখা দিতে পারে।

আবহাওয়া দফতর জানিয়ে দিয়েছে, স্বাভাবিকের থেকে দু’ মিটার পর্যন্ত উঁচু ঢেউ দক্ষিণ এবং উত্তর ২৪ পরগণার উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে। অন্য দিকে পূর্ব মেদিনীপুরে দেড় মিটারের জলোচ্ছ্বাস হতে পারে।

এই জলোচ্ছ্বাসের ফলে সুন্দরবনের গ্রামগুলিতে ব্যাপক প্রভাব পড়তে পারে। আয়লার মতো পরিস্থিতি তৈরি হলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। সুন্দরবনের বাঁধগুলি যদি দুর্বল হয়, তা হলে সে বাঁধ ভেঙে যাওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে।

অন্য দিকে চাষের জমিতে নোনা জল ঢুকে ফসলেরও ক্ষতি করার সম্ভাবনা রয়েছে বিস্তর। এ ছাড়া সমুদ্র তীরবর্তী অঞ্চলগুলিতে কাঁচা বাড়িগুলিতে ব্যাপক প্রভাব পড়তে পারে। সব মিলিয়ে বুলবুলকে মোকাবিলা করতে বেশ কষ্ট করতে হবে বাংলাকে।

(ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের যাবতীয় লাইভ আপডেট পেতে ক্লিক করুন এখানে)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here