কলকাতা: বৃহস্পতিবার নব মহাকরণের বি ব্লকে উদ্বোধন হল কলকাতা হাইকোর্টের নতুন বিভাগের। ভবনের চাবি আনুষ্ঠানিক ভাবে তুলে দেওয়া হয়হাইকোর্টের হাতে। সেখানে বিচারপতি, বিচারক এবং আইজীবীদের সামনেই বিচারব্যবস্থার নিরপেক্ষতার কথা শোনা গেল মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখে।

মামলা চলাকালীন মিডিয়া ট্রায়াল থেকে শুরু করে হাইকোর্টে পড়ে থাকা মামলা নিয়ে এ দিন সরব হন মমতা। বলেন, মানুষ এখানে আসেন ন্য়ায়বিচার পেতে। আর ন্যায় কখনও একপক্ষ হয় না। ন্যায়বিচার সবসময়ে নিরপেক্ষ হয়।

মুখ্যমন্ত্রীর কথায়, “কত মানুষ রোজ আদালতে আসেন। একটা অনুরোধ আমরা রয়েছে। বহু মামলা পড়ে রয়েছে। ওইসব মামলা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বিচার করুন। আরও কিছু মহিলা বিচারপতি দিন। জানি আপনারা অনেক চেষ্টা করছেন। তবুও বলব যেসব মামলা তিন-চার বছর পড়ে রয়েছে তার নিস্পতি দ্রুত করার ব্যবস্থা করুন। কোনো মিডিয়া ট্রায়াল নয়, প্লিজ। বিচারব্যবস্থা চলে সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে। তাই মিডিয়ার বন্ধুদের বলছি, কোনো মিডিয়া ট্রায়াল নয়। এটা আমার অনুরোধ। কাউকে ডিফেম করবেন না। একমাত্র সত্যিটাই লিখুন”।

তিনি আর্জি, “বিচারব্যবস্থা গণতান্ত্রিক দেশের স্তম্ভ। সাধার মানুষ তাই বিচারের আশায় আদালতের দ্বারস্থ হন। সুবিচারের আশায় দিনের পর দিন অপেক্ষা করে থাকেন। সব জায়গায় বিশ্বাসভঙ্গ হলে, বিচারব্যবস্থাই সাধারণ মানুষকে বিশ্বাস ফিরিয়ে দেয়। বিচার কখনও একপক্ষ হয় না, নিরপেক্ষ হয়”।

মমতা আরও বলেন, “গণতান্ত্রিক দেশে বিচারব্যবস্থা, সংবাদমাধ্যম এবং গণতান্ত্রিক পরিকাঠামোর গুরুত্ব সংবিধানে উল্লেখিত রয়েছে। কোনো একটি বিশ্বাসযোগ্যতা হারালে বাকিগুলির উপর থেকে বিশ্বাস চলে যায়। এর উপর গণতান্ত্রিক দেশের ভবিষ্যৎ নির্ভর করে”।

আরও পড়তে পারেন:

সেলিব্রিটি বিজেপি নেত্রীর মৃত্যুরহস্যে নয়া মোড়! খুনের মামলা দায়ের করল গোয়া পুলিশ

ঝাড়খণ্ডে রাজনৈতিক ডামাডোল! টলোমলো মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনের কুর্সি, দিল্লি থেকে রাঁচিতে পৌঁছোলেন রাজ্যপাল

খোঁজ মিলছে না মানিক ভট্টাচার্যের! ‘লুক আউট’ নোটিশ জারির কথা ভাবছে ইডি

ফের নিয়োগ-দুর্নীতির অভিযোগ, এ বার সমবায় ব্যাঙ্কে চাকরি বেনিয়মে নাম জড়াল মন্ত্রীর

উদ্যান পালন সপ্তাহে ফুল-ফলের গাছ, বীজ বিতরণ জয়নগরে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন