রাজ্য ‘ভোট পরবর্তী হিংসা’ মামলার রায় স্থগিত হাইকোর্টে

0
কলকাতা হাইকোর্ট
কলকাতা হাইকোর্ট। প্রতীকী ছবি: ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস থেকে

খবর অনলাইন ডেস্ক: ভোট-পরবর্তী হিংসা মামলার রায় স্থগিত রাখল কলকাতা হাইকোর্ট। ইতিমধ্যেই শুনানি শেষ হয়েছে এই মামলার। তবে মঙ্গলবার হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত বিচারপতি রাজেশ বিন্দলের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ জানায়, সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের যদি আরও কিছু বলার থাকে, তা আগামী বুধবারের মধ্যে লিখিত ভাবে জানাতে হবে।

ভোট পরবর্তী হিংসা-র রিপোর্টে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারকে তুলোধনা করেছিল জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। ৫০ পাতার ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে, ““ভোট পরবর্তী হিংসা’য় সিবিআই তদন্তের প্রয়োজন”। এমনকী রাজ্যের বাইরে ট্রায়ালের পক্ষেও সওয়াল করা হয়েছিল। ওই রিপোর্ট হাইকোর্টে জমা পড়ার পর তীব্র বিরোধিতা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)।

Shyamsundar

এর পরে রাজ্যকেও অতিরিক্ত হলফনামা জমা দিতে বলে হাইকোর্ট। এ দিনের শুনানিতে রাজ্য সরকারের হয়ে অংশ নিয়ে আইনজীবী অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি বলেন, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের ওই রিপোর্টে ত্রুটি রয়েছে। যেহেতু কমিটির দু’-তিন জন সদস্যের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ উঠেছে, তাই রিপোর্ট ঘিরে সন্দেহ থাকাটাই স্বাভাবিক।

আবার রাজ্য পুলিশের দাবি, প্রায় হাজার দুয়েক অভিযোগে অর্ধেকে কোনো তারিখ উল্লেখ করা নেই। এমনকী ৫২টি খুনের অভিযোগ রয়েছে, কিন্তু তার মধ্যে ৮টির কোনো তারিখ উল্লেখ নেই, ইত্যাদি।

তবে এ দিনের শুনানিতে মামলাকারীদের আইনজীবী প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল বলেন, “একটি স্বাধীন সিট (SIT) গঠন করে তদন্ত করা প্রয়োজন”।

অন্য দিকে, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে কিছু গুরুতর অপরাধের তদন্ত করতে নির্দেশ দেওয়া হলে তাঁরা প্রস্তুত রয়েছেন বলে জানান কেন্দ্রের অতিরিক্ত সলিসিটর জেনারেল ওয়াই জে দস্তুর।

উল্লেখ্য, রিপোর্টে মানবাধিকার দাবি করেছিল, “২ মে ফল ঘোষণার পর থেকে এ রাজ্যে হাজার হাজার মানুষ ঘরছাড়া। রবীন্দ্রনাথের মাটিতে ধর্ষণের মতো ঘটনা ঘটেছে। শেষ দু’মাসে বহু মানুষের প্রাণ গিয়েছে। বিধানসভার ফল ঘোষণার পর থেকে এ রাজ্যে এমন বহু ঘটনা ঘটেছে যা, এই মাটির সম্মান নষ্ট করেছে”।

আরও পড়তে পারেন: দক্ষিণবঙ্গে বন্যায় মৃত ১৬, জানালেন মুখ্যমন্ত্রী, ক্ষতিপূরণেরও ঘোষণা

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন