আয়কর দফতরের বিবৃতিতে দুর্গাপুজোয় আয়কর বিতর্কে নয়া মোড়

0
income tax department
প্রতীকী ছবি

ওয়েবেডেস্ক: কলকাতার কোনো দুর্গাপুজো কমিটিকে আয়কর বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়নি বলে সাফ জানাল আয়কর দফতরের সিবিডিটি। সূত্রের খবর, রীতিমতো বিবৃতি দিয়ে সিবিডিটি জানিয়েছে, চলতি বছরে কোনো পুজো কমিটিকেই আয়কর বিজ্ঞপ্তি পাঠানো হয়নি।

গত কয়েক দিন ধরেই কলকাতার বেশ কয়েকটি দুর্গাপুজো কমিটিকে ডেকে আয়কর নির্দেশ নিয়ে বিতর্ক তুঙ্গে। একটি সূত্র দাবি করেছিল, আয়কর দফতর কয়েকটি পুজো কমিটিকে গত মাসেই জানিয়ে দিয়েছে, ৩০হাজার টাকার বেশি ভেন্ডরদের দিলে টিডিএস কাটা হবে। এমনকী রিটার্নও ফাইল করতেও বলা হয়।

আয়কর দফতরের এমন পদক্ষেপের কথা জানতে পেরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেছিলেন, উৎসবে সাধারণ মানুষ দান করেন। রাজনৈতিক দল চাঁদা তুললে তা আয়করের আওতায় আসে না। একই ভাবে দুর্গা পুজো কমিটিও আয়করের আওতায় থাকা উচিত নয়।

আয়কর দফতর এ দিন জানায়, ২০১৮ সালে ডিসেম্বরে আয়কর আইনের ১৩৩ (৬) সেকশনে নোটিস পাঠানো হয় ৩টি পুজো কমিটিকে। ওই নোটিসে শুধুমাত্র জানতে চাওয়া হয় পুজো কমিটিগুলির সঙ্গে যুক্ত ঠিকাদার এবং ইভেন্ট ম্যানেজারের পেমেন্ট নিয়ে। যাঁরা এখনও পর্যন্ত রিটার্ন ফাইল করেননি তাঁদের কাছে টিডিএসের খতিয়ানও চাওয়া হয় বলে জানানো হয়েছে। পাশাপাশি, আয়কর দফতর জানায় চলতি বছরে জুলাইয়ে বেশ কয়েকটি পুজো কমিটির সদস্যকে টিডিএস বিষয়ে প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, পুজো কমিটিগুলিকে আয়কর নোটিশ পাঠানোর প্রতিবাদে মঙ্গলবার ধরনায় বসে তৃণমূল। এ দিন সকাল থেকে সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে হিন্দ সিনেমাহলের বিপরীতে অবস্থান বিক্ষোভে শামিল হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের বঙ্গজননী শাখা। ধরনামঞ্চে কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম-সহ তৃণমূলের অন্যান্য উচ্চনেতৃত্ব। ধরনামঞ্চ থেকে কেন্দ্রীয় সরকার বিরোধী স্লোগান উঠছে। কেন্দ্র বাংলার দুর্গাপুজোকে বন্ধ করে দিতে চাইছে, এমনই অভিযোগ করা হচ্ছে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here