কলকাতা: সারদা কাণ্ডে দু দফায় প্রায় ২১ মাস জেল খেটে এ বছরই ছাড়া পেয়েছেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী ও তৃণমূল নেতা মদন মিত্র। বছর ঘোরার আগেই গ্রেফাতার হয়ে গেলেন তৃণমূল সাংসদ ও অভিনেতা তাপস পাল। তাপসও চিটফান্ড কাণ্ডে গ্রেফতার হলেও সারদা নয়, তাঁকে সিবিআই গ্রেফতার করল রোজভ্যালির সঙ্গে যুক্ত থাকার সময় অবৈধ ভাবে নগদে টাকা নিয়েছিলেন তাপস। ২০১১ সালে রোজভ্যালি ফিল্ম ডিভিশনের ডিরেক্টর ছিলেন তাপস। সেই সময়ই তিনি সংস্থা থেকে নগদে বেশ কিছু টাকা নেন কৃষ্ণনগরের সাংসদ।

মঙ্গলবার জেরার জন্য সিবিআই ডেকে পাঠিয়েছিল তাপসকে। দলীয় নেতৃত্বের সঙ্গে কথা বলে হাজিরা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি। সকাল পৌনে বারোটায় সস্ত্রীক পৌঁছে যান সিবিআই দফতরে। তারপর দু’দফায় তাঁকে চার ঘণ্টা জেরা করেন সিবিআই-এর গোয়েন্দারা। কিন্তু তাপসের বয়ানে বেশ কিছু অসঙ্গতি পাওয়া যায় বলে অভিযোগ। তার জন্যই তৃণমূল সাংসদকে নিজেদের হেফাজতে রেখে জেরা করার সিদিধান্ত নেয় সিবিআই।

mamataমোদিবাবু চাইলে আমাদের সবাইকে গ্রেপ্তার করুক। আমরা সবাই তৈরি। কিন্তু তা বলে তিনি আমাদের চুপ করিয়ে রাখতে পারবেন না।’’-মুখ্যমন্ত্রী

 

প্রত্যাশিত ভাবেই তাপসের গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে বিজেপি রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করছে বলে জানানো হয়েছে তৃণমূলের তরফে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নবান্নে এই গ্রেফতারি প্রসঙ্গে বলেন,  “মোদিবাবু চাইলে আমাদের সবাইকে গ্রেপ্তার করুক। আমরা সবাই তৈরি। কিন্তু তা বলে তিনি আমাদের চুপ করিয়ে রাখতে পারবেন না।’’

তাপস পাল ছাড়া আরেক তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কেও হাজিরা দিতে বলেছে সিবিআই। তিনি অবশ্য এখনো সিবিআই-এর ডাকে সাড়া দেননি।   

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here